সুভাষ বৈদ্য, কলকাতা: সিবিআই-এর সদ্য প্রাক্তন অন্তর্বর্তীকালীন প্রধান এম নাগেশ্বর রাওয়ের স্ত্রীর সংস্থায় তল্লাশি কলকাতা পুলিশের৷ সল্টলেকে সিএ ব্লকের একটি বাড়িতে অ্যাঞ্জেলিনা মার্সেন্টাইল প্রাইভেট লিমিটেড নামে একটি সংস্থার অফিস রয়েছে৷ ওই সংস্থার সঙ্গে যুক্ত সিবিআই কর্তার স্ত্রী ও মেয়ে৷ স্ত্রীর বিরুদ্ধে বউবাজার থানায় আর্থিক তছরুপের অভিযোগ হয়েছে৷ যদিও স্ত্রীর সংস্থার বিরুদ্ধে ওঠা যাবতীয় অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন সিবিআই কর্তা নাগেশ্বর রাও৷

শনিবার শিলংয়ে কলকাতা পুলিশ কমিশনারকে জেরা করবে সিবিআই৷ তার আগে সিবিআই কর্তার স্ত্রীর সঙ্গে যুক্ত সংস্থায় হানা দিল কলকাতা পুলিশ৷ কলকাতা ক্লাইভ রো ও সল্টলেক সিএ ব্লকের অফিসে শুক্রবার রাতে হানা দেয় কলকাতা পুলিশের প্রায় ৩০ জনের দল৷ ২০১৮ সালে এম নাগেশ্বর রাও এর স্ত্রীর বিরুদ্ধে বউবাজার থানায় আর্থিক তছরুপের মামলা হয়৷ সেই মামলার পরিপ্রেক্ষিতেই কলকাতা পুলিশের তল্লাশি৷ অনেকেই মনে করছেন রাজীব কুমার কান্ডের পাল্টা এই অভিযান৷

১৯৯৪ এর ফেব্রুয়ারিতে Angela Mercantiles Private Ltd (AMPL) নামে একটি সংস্থার প্রতিষ্ঠা হয়৷‘এএমপিএল’ হল একটি নন ব্যাঙ্কিং ফিন্যান্স কোম্পানি৷ কলকাতা ছাড়া সল্টলেক সিএ ব্লকের একটি বাড়িতেও ওই সংস্থার অফিস রয়েছে৷ সুত্রের খবর, রেজিস্টার অফ কোম্পানিজ এর তথ্য অনুযায়ী ‘এএমপিএল’এবং নাগেশ্বর রাওয়ের স্ত্রী এম সন্ধ্যার মধ্যে বেশ কিছু আর্থিক লেনদেন হয়েছে৷ সেই লেনদেনে আর্থিক তছরুপের অভিযোগ এনে বউবাজার থানায় মামলা হয়৷ সেই মামলার তদন্তে নামে কলকাতা পুলিশ৷ এছাড়া ওই সংস্থাটি নাগেশ্বর রাওয়ের কন্যাকেও বেতন বাবদ কয়েক লক্ষ টাকা দিয়েছে।

যদিও সিবিআই কর্তা এম নাগেশ্বর রাও তার স্ত্রীর সংস্থার বিরুদ্ধে ওঠা যাবতীয় অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন৷ তাঁর দাবি, অ্যাঞ্জেলিনা মার্সেন্টাইল প্রাইভেট লিমিটেড নামক সংস্থা বা তাঁর স্ত্রী কোনও প্রকারের আর্থিক তছরুপের সঙ্গে জড়িত নয়। এই বিষয়ে গত বছরের অক্টোবর মাসে একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তি জারি করেছিলেন তিনি।

স্ত্রীর বিরুদ্ধে বউবাজার থানায় আর্থিক তছরুপের মামলা হয়৷ সেই মামলার পরিপ্রেক্ষিতেই কলকাতা পুলিশের তল্লাশি৷ সল্টলেক সিএ ব্লকের একটি বাড়িতে রয়েছে Angela Mercantiles Private Ltd (AMPL) নামে একটি সংস্থার দফতর। ‘এএমপিএল’ হল একটি নন ব্যাঙ্কিং ফিন্যান্স কোম্পানি৷

১৯৯৪ এর ফেব্রুয়ারিতে এই সংস্থার প্রতিষ্ঠা হয়৷ সুত্রের খবর, রেজিস্টার অফ কোম্পানিজ এর তথ্য অনুযায়ী ‘এএমপিএল’এবং নাগেশ্বর রাওয়ের স্ত্রী এম সন্ধ্যার মধ্যে বেশ কিছু আর্থিক লেনদেন হয়েছে৷ সেই লেনদেনে আর্থিক তছরুপের অভিযোগ উঠে৷ এছাড়া ওই সংস্থাটি নাগেশ্বর রাওয়ের কন্যাকেও বেতন বাবদ কয়েক লক্ষ টাকা দিয়েছে।