স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: বোমা ফাটালেন কলকাতার পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমার৷ সারদা কাণ্ডে নিরপেক্ষতা বজায় রাখতে এই কেলেঙ্কারির তদন্তের সঙ্গে যুক্ত নয় এমন কোনও সিবিআই অফিসারকে নিয়োগ করার আর্জি জানিয়ে সিবিআইয়ের ডিরেক্টরকে চিঠি দিলেন কলকাতার পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমার৷

ইতিমধ্যেই সারদা মামলার তদন্তে রাজ্যের তদন্তকারী সংস্থাগুলির বিরুদ্ধে আদালতে পক্ষপাতের অভিযোগ করেছে সিবিআই। স্বভাবতই পুলিশ কমিশনারের এহেন চিঠি দেখে ওয়াকিবহাল মহলের অভিমত, সারদা কাণ্ডে কৌশলে সিবিআইয়ের বর্তমান তদন্তকারীদলের বিরুদ্ধেই পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ তুলে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থাকে চাপে ফেলার পথ প্রশস্ত করলেন রাজ্য পুলিশের দুঁদে এই শীর্ষ কর্তা৷ স্বভাবতই পুলিশ কমিশনারের এহেন আর্জিকে ঘিরে শুরু হয়েছে তীব্র চাপানউতোর।

সিবিআইয়ের মতো তদন্তকারী সংস্থা রাজনৈতিক পক্ষপাতদুষ্ট হয়ে যাতে কাজ না করে, সে কথা বলতে গিয়ে রাজীব কুমার ওই চিঠিতে তদন্তকারী সংস্থার বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ করেছেন৷ তাঁর অভিযোগ, কোনও একটি রাজনৈতিক দলের নেতা সারদা তদন্ত নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করেছিলেন৷ যে কারণে তাঁর বিরুদ্ধে মানহানির মামলাও চলছে৷ কিন্তু তদন্তকারী সংস্থা এমনভাবে কাজ করছে, যা সেই নেতাকে খুশি করার সামিল!

পুলিশ কমিশনার সরাসরি না হলেও, সিবিআইয়ের তদন্তকারী দলের কর্মপদ্ধতি নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন৷ তাঁর অভিযোগ, তদন্তকারী সংস্থা বা অফিসার যদি কারও লিখিত জবাবে সন্তুষ্ট না হয়, তাহলে তাকে সশরীরে হাজিরা দেওয়ার জন্য তলব করতে পারে৷ কিন্তু তার একটি পদ্ধতি রয়েছে৷ এই মামলায় তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নোটিশ পাঠানোর কথা বলা হলেও, তাঁর সঙ্গে নূন্যতম যোগাযোগ না করেই দায়সারাভাবে সেই কাজ করা হয়েছে বলে অভিযোগ৷ এই কারণগুলির জন্যই বর্তমান তদন্তকারী দলের উপর রাজীব কুমার আস্থা হারিয়েছেন বলে মনে করছে পুলিশমহল৷

সারদা কাণ্ড সামনে আসার পর ২০১৩ সালে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে এই মামলার প্রথম তদন্ত শুরু করেছিল রাজ্য পুলিসের স্পেশাল ইনভেস্টিগেশন টিম৷ যার মাথায় ছিলেন তৎকালীন বিধাননগর কমিশনারেটের পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমার৷ যদিও সেসময় রাজ্যের বিরোধী দলগুলির তরফে তদন্তের নিরপেক্ষতা নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয়েছিল৷ তদন্ত চলাকালীন শাসকদলের বেশ কয়েকজন প্রভাবশালীকে বাঁচাতে পুলিশের বিরুদ্ধে তদন্তের নথিপত্র লোপাটের অভিযোগ ওঠে। বিরোধীদের সেই অভিযোগের নিশানায় ছিলেন প্রধানত রাজীব কুমারই৷

আদালতের নির্দেশে তদন্তভার গ্রহণের পর সারদা মামলায় রাজ্য পুলিশের ভূমিকা খতিয়ে দেখার কাজ শুরু করে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা৷ সিবিআই সূত্রের খবর, সংস্থার তরফে বেশ কয়েকবার তাঁকে নোটিশ পাঠানো হলেও এখনও পর্যন্ত তিনি কেন্দ্রীয় গোয়েন্দাদের মুখোমুখি হননি৷ স্রেফ জবাবি চিঠি দিয়েই দায় সেরেছেন৷

যদিও কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা সূত্রের খবর, সারদা মামলায় সিবিআইয়ের তদন্তকারী দলের প্রতি আস্থা রাখছেন সিবিআই ডিরেক্টর৷ ইতিমধ্যে শীর্ষ আদালতে রাজীব কুমারের অভিযোগ ভিত্তিহীন বলে জানিয়েও দিয়েছেন তাঁরা৷