প্রতিকী ছবি

সৌপ্তিক বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা: চারিদিকে শুধুই বিষের বাঁশি। খবর, খাবার থেকে শুরু করে কথাবার্তা , আড্ডা সবেতেই করোনার গ্রাস। কারণ টিভিতে খেলা বন্ধ, খবরে রাজনীতির বদলে শুধুই ভাইরাসের খবর। এমন সময়ে কিছু ভালো খবরও মিলছে। রাস্তায় লোকজন কম। গাড়িঘোড়া কম চলাচল করছে। তাই শহরের বাতাসে আজ বিষ কম। দূষণ মুক্ত বললেও ভুল হবে না। জোরে শ্বাস নেওয়ার আশ্বাস নেই, তবু বাস্তব এটাই যে দিবারাত্র বিষের খবরের জায়গায় যে কলকাতার বাতাস আপাতত নির্বিষ।

পশ্চিমবঙ্গ পলিউশন কন্ট্রোল বোর্ডের তথ্য সেই কথাই জানাচ্ছে, বালিগঞ্জের দূষণমাত্রা মাত্র ৯৮। জ্বলছে সবুজ সঙ্কেত। ভাবতে পারেন? অবাক করা হলেও বাস্তব এটাই। বিধাননগর অঞ্চল। সবসময় গাড়ি যাচ্ছে, মানুষের ভিড়। দূষণমাত্রা সেখানেও ৯৮। এখানেও সঙ্কেত সবুজ। ফোর্ট উইলিয়ামে দূষণমাত্রা ১৩২। সঙ্কেত হলুদ, অর্থাৎ মোটের উপর ভালোই। মোটামুটি বললেও ভুল হবে না। শ্বাস নেওয়ার যোগ্য। যাদবপুরের দূষণমাত্রা ১০০। সঙ্কেত যথেষ্ট সন্তোষজনক। রবীন্দ্রভারতীতে দূষণমাত্রা ১২৫। রবীন্দ্র সরোবরে ৯৪।

ভিক্টরিয়ায় দূষণমাত্রা অল্প বেশি, ১৫৫। তবু মাত্রার রঙ সবুজ। অর্থাৎ ঠিকঠাক। এদিকে রাজ‌্যে তীব্র হচ্ছে করোনা আতঙ্ক। গতকাল, শুক্রবার একজন আক্রান্তের সন্ধান পাওয়া গিয়েছিল. আজ, শনিবার ফের নতুন করে একজন আক্রান্তের সন্ধান মিলেছে। ওই তরুণী স্কটল্যান্ড থেকে ফিরেছিলেন। তিনি হাবড়ার বাসিন্দা। গতকাল, শুক্রবার গভীর রাতে তাঁর লালারস পরীক্ষা করতে বেলেঘাটা নাইসেডে পাঠানো হয়। রাতেই রিপোর্ট আসে। সেখানে দেখা যায় ওই তরুণী করোনা পজিটিভ।

আপাতত তিনি বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। এই নিয়ে রাজ্যে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা পৌঁছে গেল তিন–এ। স্বাভাবিকভাবে করোনার কারণে এখন তীব্র আতঙ্কে ভুগছেন সাধারণ মানুষ। এভাবে রোগের প্রকোপ যদি বাড়াতে থাকে, তাহলে গৃহবন্দি হয়ে থাকা ছাড়া আর বাঁচার কোনও উপায় নেই বলেই মনে করছেন সাধারণ মানুষ ৷ তাই রাস্তা জনমানবহীন। বাতাস দূষণহীন।

আজকে করোনা পজেটিভ ধরা পড়া হাবড়ার তরুণী দেশের ফেরার পর গৃহবন্দী ছিলেন বলেও জানিয়েছে বাড়ির লোকেরা। যদিও সেই তথ্য খতিয়ে দেখছে প্রশাসন। স্কটল্যান্ডে গবেষণার কাজে গিয়েছিলেন ওই তরুণী। দেশে ফেরার পর বাড়িতেই ছিলেন। তারপর দিন দু’য়েক আগে তাঁকে বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। প্রথমে উপসর্গ না দেখা দিলেও হঠাৎ তাঁর সর্দি কাশি দেখা যায়। তারপরই পরীক্ষা করা হয় লালারস। নাইসেডে পরীক্ষা করে দেখা যায় করোনা পজিটিভ।