ফাইল ছবি

কলকাতাঃ  অবশেষে রাজ্যের সমস্ত সরকারি স্কুলগুলিতে প্রধান শিক্ষক নিয়োগের জট কাটল। কাউন্সেলিং শুরু করতে পারবে রাজ্যের স্কুল সার্ভিস কমিশন। এমনটাই নির্দেশ দিল কলকাতা হাইকোর্ট। আজ মঙ্গলবার এই সংক্রান্ত মামলার শুনানি হয় কলকাতা হাইকোর্টে। শুনানি শেষে বিচারপতি মৌসুমী ভট্টাচার্জের এজলাসে এই সংক্রান্ত মামলার শুনানি হয়।

শুনানি শেষে এই নির্দেশ দেন আদালত। একই সঙ্গে কাউন্সিলিংয়ের ওপর বহাল থাকা অন্তর্বর্তী স্থগিতাদেশও প্রত্যাহার করে নিয়েছে আদালত। যদিও মামলার নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত মামলাকারীদের সম-সংখ্যক আসন ফাঁকা রাখতে হবে কমিশনারকে।

রাজ্যের সরকারি স্কুলগুলিতে সরকারি স্কুলে প্রধান শিক্ষক হতে গেলে ২০১৫ সাল পর্যন্ত স্নাতকোত্তরে ৪০ শতাংশ নাম্বার লাগতো। ২০১৬ সালে তা বাড়িয়ে ৪৫ শতাংশ করা হয় এবং ২০১৭ সালে ৫০ শতাংশ করা হয়। আর এই নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ জানিয়েই মামলা করা হয়। মামলার প্রেক্ষিতে সবাইকে পরীক্ষায় বসার অনুমতি দেয় কলকাতা হাইকোর্ট। কিন্তু মামলাকারীদের ফলপ্রকাশ করা হয়নি। ফলে তারা কাউন্সিলিং-এ ডাক পাচ্ছেন না। আবার মামলা আসে আদালতে। গত ২২ শে জানুয়ারি কাউন্সিলিংয়ের ওপর অন্তর্বর্তী স্থগিতাদেশ জারি করে আদালত।

আজ মঙ্গলবার এই সংক্রান্ত মামলার শুনানি হয় বিচারপতি মৌসুমী ভট্টাচার্জের এজলাসে। শুনানি শেষে আদালত কাউন্সেলিং শুরু করার নির্দেশ দেয় কলকাতা হাইকোর্ট।