কলকাতা:  সরকারি কর্মীদের ডিএ নিয়ে ফের কলকাতা হাইকোর্টের তোপের মুখে রাজ্য সরকার। রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের সঙ্গে কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের ডিএ-এর বৈষম্য কেন? মামলার শুনানিতে প্রশ্ন তুলল কলকাতা হাইকোর্ট। আদালতের পর্যবেক্ষণ, ‘বৈষম্য করা মানে মৌলিক অধিকার খর্ব।’

রাজ্য সরকারি কর্মীদের ডিএ সংক্রান্ত সমস্ত নথি ইতিমধ্যে জমা পড়েছে কলকাতা হাইকোর্টে। সেই সমস্ত নথি খতিয়ে দেখে আদালত। পরে বিচারপতি রাজ্যের কাছে প্রশ্ন করেন, ‘যাঁরা রাজ্যের বাইরে কাজ করেন। তাঁদের মহার্ঘ ভাতা বেশি কেন? তাঁরা কী রাজ্যের ব্লু আইড বয়? ট্রাইব্যুনাল থেকে সদুত্তর পাননি কর্মীরা। কর্মীদের মধ্যে কেন বৈষম্য?’

ইতিমধ্যে সপ্তম বেতন কমিশন লাঘু করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। যার ফলে কেন্দ্রীয় সরকারী কর্মচারীদের মাইনে বেড়েছে ২.৫৭ গুণ হারে ৷ এর ফলে রাজ্যের সঙ্গে কেন্দ্রের কর্মচারীদের বেতনের ফারাক এক ধাক্কায় বেড়ে গিয়েছে অনেকটাই। প্রায় এক বছরের বেশি সময় ধরে চলছে এই মামলা।

জানা গিয়েছে, রাজ্য সরকারি কর্মীদের বকেয়া ডিএ মেটানোর স্টেট অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ ট্রাইব্যুনালের মামলা দায়ের হয়। সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়, ডিএ দেওয়া সরকারের ইচ্ছার উপর নির্ভর করে ৷ ট্রাইব্যুনালের এই নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে কলকাতা হাইকোর্টে মামলা দায়ের হয়। ‘ডিএ কর্মীদের অধিকার নয়’, স্যাটের এই নির্দেশে ক্ষুব্ধ আদালত। অ্যাডভোকেট জেনারেলর আপত্তি উড়িয়ে মামলা গ্রহণ করা হয়। রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের ডিএ মামলা নিয়ে স্যাট-এর নির্দেশকে তুলোধনা করে ডিভিশন বেঞ্চ।