কলকাতা:  দমদমে করোনায় মৃত ব্যাক্তির এক সহকর্মী গুরুতর অসুস্থ। কার্যত আশঙ্কাজনক অবস্থাতেই তাঁকে এনআরএস হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। জানা যাচ্ছে, তাঁর প্রবল শ্বাসকষ্ট হচ্ছে। ভেন্টিলেশনে তাঁকে রাখা হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। ইতিমধ্যে গুরতর অবস্থায় থাকা ব্যক্তির করোনার টেস্ট করা হয়েছে। যদিও রিপোর্ট এখনও আসেনি।

পড়ুন আরও- প্রয়োজনে কার্ফু জারি, রাজ্যগুলিকে নির্দেশ দিতে পারে কেন্দ্র

তবে ডাক্তারদের প্রাথমিক ভাবে অনুমান, দমদমে মৃত ব্যক্তি ফেয়ারলি প্লেসে কাজ করতেন। একসঙ্গেই কাজ করতেন এই অসুস্থ ব্যক্তিও। লক্ষণ যা তাতে তাঁর মধ্যেও সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়তে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। যদিও এই বিষয়ে সঠিকভাবে কিছু বলা যাচ্ছে না।

রাজ্যে তথা কলকাতায় প্রথম প্রাণ কেড়েছে মারণ করোনা। সোমবার দুপুরে সল্টলেকের আমরি হাসপাতালে মারা যান রাজ্যের চতুর্থ করোনা আক্রান্ত রোগী। মৃত ৫৭ বছরের ব্যক্তি পেশায় রেলকর্মী, দক্ষিণ দমদম পুরসভার যুগীপাড়ার বাসিন্দা।

পাশাপাশি রাজ্যে আরও দু’জনের করোনায় আক্রান্ত হওয়ার খবর মিলেছে। তাঁদের মধ্যে একজন ব্রিটেন ও অপরজন ইজরায়েল থেকে ফিরেছেন বলে খবর। সব মিলিয়ে সোমবার পর্যন্ত ন’জনের শরীরে এই ভাইরাসের সংক্রমণ ঘটল।

যুগীপাড়ার বাসিন্দা ওই ব্যক্তিকে ১৬ মার্চ সল্টলেকের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। প্রথম থেকেই তাঁর শারীরিক অবস্থা নিয়ে চিন্তায় ছিলেন চিকিৎসকরা। রবিবার রাত থেকে কিডনি বিকল হতে শুরু করে। অন্য অঙ্গপ্রত্যঙ্গও বিকল হতে থাকে। সোমবার কৃত্রিম ফুসফুস বা ইকমোর ব্যবস্থা দিয়ে রোগীকে বাঁচানোর চেষ্টা করেও শেষ রক্ষা হয়নি। দুপুর ৩টে ৩৫ মিনিটে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয় তাঁর। ঘটনায় গভীর শোকপ্রকাশ করে পরিবারের পাশে থাকার বার্তা দিয়েছেন রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

জীবে প্রেম কি আদৌ থাকছে? কথা বলবেন বন্যপ্রাণ বিশেষজ্ঞ অর্ক সরকার I।