কলকাতা:  ফের কলকাতার বাসে ভয়ঙ্কর ঘটনার সাক্ষী এক মহিলা। চলন্ত বাসে প্রকাশ্যে এক যুবকের বিরুদ্ধে হস্তমৈথুনের অভিযোগ। শুধু তাই নয়, যুবকের বিরুদ্ধে মারাত্মক অভিযোগ। যুবকের বীর্য গিয়ে পড়ে এক তরুণীর গায়ে। চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে বারাসত-বারুইপুর রুটের একটি বাসে। ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। যদিও অভিযুক্তকে হাতেনাতে ধরে ফেলেন বাসের অন্যান্য যাত্রী এবং কনডাক্টররা। এরপর তাকে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ধৃত ওই যুবকের নাম গৌরব দে।

জানা যায়, বারাসত-বারুইপুর রুটের একটি বাসে ওঠে ওই যুবক। হঠাত করেই বাসটি রুবির কাছে পৌঁছলে সামনের দিকে বসে থাকা এক তরুণী চিৎকার করে ওঠেন। চিৎকার করে বলতে থাকেন, সামনে দাঁড়িয়ে থাকা যুবক হস্তমৈথুন করছেন। তার বীর্য পড়েছে তার হাতে। সঙ্গে সঙ্গে বাস থেকে নেমে পালানোর চেষ্টা করেন ওই যুবক। তরুণীর চিৎকারে যুবককে ধরে ফেলেন কনডাক্টর ও সহযাত্রীরা। প্রকাশ্যে এই ঘটনায় বাসে থাকা অন্যান্যরাও কার্যত তাজ্জব হয়ে যান। অভিযুক্ত যুবককে বেধড়ক মারধর দিতে থাকেন। এরপর অভিযুক্ত গৌরবকে স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনের হাতে তুলে দেওয়া হয়।

জানা যাচ্ছে, অভিযুক্ত গৌরব বেলেঘাটা বিল্ডিং মোড় থেকে বাসে উঠেছিলেন। ধৃত গৌরব দে বেলাঘাটার জোড়ামন্দির এলাকায় থাকে বলে পুলিশের দাবি। তবে কেন সে এমন কাজ করল তা এখনও জানা যায়নি। দফায় দফায় জেরা করা হচ্ছে। প্রকাশ্যে কলকাতার বাসে এমন ঘটনা নতুন কিছু নয়। গত বছর এক তরুণী বাসে এক ব্যক্তির অশালীন ভিডিও তুলে ধরে। আর তা কলকাতা পুলিশের ফেসবুক পেজে শেয়ার করে। যদিও মুহূর্তের মধ্যে ব্যবস্থা নেয় কলকাতা পুলিশও। এই ঘটনায় সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে তীব্র প্রতিবাদ হয়েছিল। সেই একই ঘটনার পুনঃরাবৃত্তি কলকাতার বাসে। এবার আরও ভয়ঙ্কর! কবে এহেন মানসিকতার পরিবর্তন ঘটবে? এটাই এখন বড় প্রশ্ন নাগরিক সমাজের কাছে।