লন্ডন: বিশ্বকাপে পরিণত নেতা বিরাট! এর আগে দেশের জার্সিতে দু’টি বিশ্বকাপ খেললেও প্রথম বিশ্বক্রিকেটের এই মেগা ইভেন্টে ভারতীয় দলকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন বিরাট কোহলি৷ মাঠে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে বিরাট আগ্রাসন দেখেছে ক্রিকেটবিশ্ব৷ কিন্তু রবিবার কেনিংটন ওভালে উলটো ছবি দেখা গেল৷ প্রাক্তন অজি অধিনায়ক স্টিভ স্মিথকে ভারতীয় সমর্থকের ‘চিটার’ মন্তব্যে এগিয়ে এলেন বিরাট৷ সমর্থকদের এ হেন মন্তব্য না-করতে বলার পাশাপাশি তাদের জন্য স্মিথের কাছে ক্ষমা চেয়ে নেন ভারত অধিনায়ক৷

অজিদের বিরুদ্ধে মাঠে নামলে এতদিন ‘ভিলেন’ হিসেবে দেখা যেত বিরাটকে৷ কিন্তু রবিবার স্পোর্টসম্যানশিপের পরিচয় দিয়ে ভারতীয় সমর্থকদের শান্ত থাকার পরামর্শ দিলেন ক্যাপ্টেন কোহলি৷ ঘটনাটি ঘটেছিল ভারতীয় ইনিংসের ৪৬তম ওভারে৷ হার্দিক পাণ্ডিয়া আউট হওয়ার সময় থার্ডম্যানে ফিল্ডিং করছিলেন স্মিথ। সেই সময় ভারতীয় সমর্থকরা প্রাক্তন অজি অধিনায়কের উদেশ্যে চিটার চিটার…বলে রব তোলেন। কিন্তু এতে রেগে যান বিরাট৷ গ্যালারির দিকে কিছুটা এগিয়ে গিয়ে ভারতীয় সমর্থকদের দিয়ে তাকিয়ে বিরাট এরূপ মন্তব্য না-করার জন্য বলেন ভারত অধিনায়ক৷ উলটে ভারতীয় ফ্যানেদের হাততালি দেওয়ার জন্য বলেন কোহলি৷ এর পরই দ্রুত এসে বিরাটের পিঠ চাপড়ে অভিবাদন জানান স্মিথ৷

বিশ্বকাপের শুরু থেকেই প্রাক্তন অজি অধিনায়কের উদেশ্যে গ্যালারি থেকে কুরুচিকর মন্তব্য উড়ে আসে৷ ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়া ওয়ার্ম-আপ ম্যাচেও স্মিথকে চিটার বলে কটুক্তি করেন ব্রিটিশ সমর্থকরা৷ গত বছর কেপটাউন টেস্টে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে বল বকৃতি কাণ্ডে এক বছরের নির্বাসন কাটিয়ে বিশ্বকাপের ঠিক আগে অস্ট্রেলিয়া দলে ফিরেছেন স্মিথ ও ডেভিড ওয়ার্নার৷

স্মিথের প্রতি সমর্থকদের এ হেন আচরণ সমর্থনযোগ্য নয় বলে মন্তব্য করে বিরাট বলেন, ‘ঘটনাটি অনেক আগের৷ তার পর নির্বাসন কাটিয়ে মাঠে ফিরে দেশের জার্সিতে ভালো খেলার চেষ্টা করছে৷ আইপিএলেও আমি সমর্থকদের এই মন্তব্য করতে শুনেছি৷ অতীতেও এমনটা হয়েছে৷ কিন্তু এটা কোনওভাবেই সমর্থন করা যায় না৷ এদিন গ্যালারিতে অনেক ভারতীয় সমর্থক ছিল৷ আমি চাই না ওরা কোনও খারাপ দৃষ্টান্ত স্থাপন করুক৷ আমিও ওই জায়গায় থাকলে আমার সঙ্গে একই ঘটনা ঘটত৷ সুতরাং ভারতীয় সমর্থকদের হয়ে স্মিথের কাছে আমি ক্ষমা চাইছি৷’ বিরাটের এই স্পোর্টসম্যানশিপ আচরণকে সমর্থন করেছে ক্রিকেটদুনিয়া৷

রবিবার ওভালে অস্ট্রেলিয়াকে ৩৬ রানে হারিয়ে বিশ্বকাপে টানা দু’টি ম্যাচে জয় পেয়েছে কোহলির ভারত৷ শিখর ধাওয়ান ও বিরাটের ব্যাটে প্রথমে ব্যাটিং করে ৩৫৩ রান তুলেছিল ভারত৷ রান তাড়া করতে গিয়ে ৩১৬ রানে থেমে যায় অজি ইনিংস৷ ধাওয়ারের দুরন্ত সেঞ্চুরি(১১৭) এবং কোহলি ৮২ রান করেন৷ অজি ইনিংসে সর্বোচ্চ ৬৯ রান করেন স্মিথ৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.