কলকাতা: রঙ ছাড়া আমাদের প্রত্যেকের জীবন অন্ধকারে ভরা। আমরা সবকিছুকে রঙিন দেখি বলেই আমাদের মনটাও থাকে সুন্দর। প্রত্যেকটি মানুষেরই কিছু বিশেষ রঙ হয় প্রিয়। কিন্তু অনেকে আবার নিজের গায়ের রঙের সঙ্গে মিলিয়ে পরতে চান পোশাক। যদি মনে প্রশ্ন জাগে যে, কোন রঙটি আপনার জন্য মানানসই? তাহলে চিন্তা নেই। একেবারে বড়ো বড়ো ফ্যাশন এক্সপার্টদের মতোই নিজেই নিজের জন্যে সঠিক রঙটি বাছতে পারেন রঙের বিশ্লেষণ- এর মাধ্যমে।

আপনার স্কিন টোন অর্থাৎ ত্বক, চুল এবং চোখের রঙ ব্যবহার করে আপনি বুঝতে পারবেন যে আপনি ওয়ার্ম না কুল এবং আপনার ত্বক কতটা ডার্ক বা লাইট সেটাও নির্ধারণ করতে পারবেন।

 

একটা রঙই যেমন আপনার চেহারা এবং সমগ্র লুকটাকে ডুবিয়ে দিতে পারে তেমন একটি রঙেই ফুটে উঠতে পারে আপনার ব্যক্তিত্ব। আপনার রুচিশীলতার পরিচয় দেয় এই রঙ। তাই নিজের জন্যে সঠিক পোশাকের রঙ বাছাটা খুবই দরকার। আপনার আন্ডারটোন নির্ধারণ করবেন কীভাবে?

আপনার ত্বকের উপরের অংশ যতই কালো বা ফর্সা হোক না কেন ত্বকের আন্ডারটোনটি হয় শীতল বা উষ্ণ প্রকৃতির আর তা না হলে নিরপেক্ষ হবে। কব্জির কাছের শিরাগুলি লক্ষ্য করুন। ত্বক যদি খুব হালকা হয় এবং আপনি আপনার শিরাগুলি দেখতে পান তাহলে আপনার ত্বকের নীচে সেগুলি নীল বা সবুজ কোনটি তা দেখুন। যদি প্রথমেরটা হয়, তাহলে বুঝবেন যে আপনার কুল আন্ডারটোন রয়েছে, আর যদি পরেরটি হয়, তাহলে আপনার আন্ডারটোন ওয়ার্ম। শীতল আন্ডারটোনযুক্ত লোকেদের ত্বক উষ্ণ আন্ডারটোনযুক্ত ব্যক্তিদের ত্বকের চেয়ে খুব সহজে সানবার্ন হয়ে যায়।

কুল আন্ডারটোন হলে উজ্জ্বল নীল, পার্পেল, সবুজ, হলুদ রঙ মানাবে ভালো। ওয়ার্ম আন্ডারটোন হলে কমলা, হলুদ, হালকা তামাটে এবং অফ হোয়াইট মানাবে ভালো। নিউট্রাল আন্ডারটোন হলে লাল, টিল কালার, ডার্ক পার্পেল এই রঙগুলি মানাবে ভালো আপনাকে। এই রঙগুলিকে মাথায় রেখে কিনে নিন পোশাক। রইলো লিংক।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.