স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: চিংড়িঘাটার পর শহরে আরও একটি উড়ালপুলের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হবে৷ তার জন্যই ওই সেতুটি বন্ধ রাখা হতে পারে৷ আগামী সপ্তাহে বালিগঞ্জের বিজন সেতুটি বন্ধ করে দিতে পারে পুলিশ৷ ইতিমধ্যেই এই বিষয় পুলিশের কাছে আবেদন জানিয়েছেন কেএমডিএ-র কর্তারা৷

সূত্রের খবর, আগামী শুক্রবার থেকে সোমবার পর্যন্ত বালিগঞ্জের বিজন সেতুটি বন্ধ রাখার জন্য পুলিশকে প্রস্তাব দিয়েছে কেএমডিএ-র কর্তারা৷ এর ফলে ওই চারদিন দক্ষিণ কলকাতার বালিগঞ্জ,কসবায় ব্যপক যানজটের আশঙ্কা রয়েছে।গড়িয়াহাট থেকে কসবা হয়ে রুবি মোড়ে যাওয়ার একমাত্র মাধ্যম বালিগঞ্জের বিজন সেতু৷ অন্যদিকে বাইপাস থেকে কসবা হয়ে গড়িয়াহাট প্রচুর যাত্রীবাহি যান চলাচল করে থাকে৷ তবে সেতু বন্ধের সময় কিভাবে যানবাহন চলাচল নিয়ন্ত্রণ করা যায় তা খতিয়ে দেখছে কলকাতা ট্রাফিক পুলিশ৷

লালবাজার সূত্রে খবর, স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য বালিগঞ্জ বিজন সেতুটি বন্ধ করা হলে বাইপাসগামী যানবাহনগুলো পার্ক সার্কাস কানেক্টর এবং যাদবপুর থানার সামনে দিয়ে ঘুরিয়ে দেওয়া হবে। তবে ছোটগাড়িগুলো বন্ডেল গেট উড়ালপুল দিয়ে যাতায়াত করতে পারবে৷ রুবি মোড় ও গড়িয়াহাটের মধ্যে যে অটোগুলো চলাচল করে সেগুলো যাত্রী নিয়ে সেতুর দুই প্রান্ত পর্যন্ত আসতে পারবে৷

এদিকে পুলিশ ও কেএমডিএ-র মধ্যে দফায় দফায় বৈঠকের পর চিংড়িঘাটা উড়ালপুল খোলা নিয়ে জটিলতা কাটল। কলকাতা পুলিশ কেএমডিএ কে চিঠি দিয়ে আবেদন করেছিল যাতে সোমবার সকাল ৮ টায় ওই উড়ালপুলটি খুলে দেওয়া হয়৷ অবশেষে বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয় সকাল ৮ টা নয় বেলা সাড়ে ১১টায় চিংড়িঘাটা উড়ালপুলটি খুলে দেওয়া হবে৷

শুক্রবার রাত থেকে বন্ধ চিংড়িঘাটা উড়ালপুল৷ চলছে স্বাস্থ্য পরীক্ষার কাজ৷ আর সে কাজের জন্য ট্রাফিক সামলাতে রীতিমত হিমসিম খেতে হচ্ছে পুলিশকে৷ গত কয়েকদিন যেভাবে বাইপাশে যানজট তৈরি হয় তাতে চাপ বেড়েছে পুলিশের। আর সে কারণেই কেএমডিএ-কে চিঠি দিয়ে কলকাতা পুলিশ আবেদন করেছিল, আগামীকাল সোমবার উড়ালপুলটি খুলে দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়৷ তখন কেএমডিএ জানিয়েছিল, এখনও যে কাজ বাকি আছে, তা শেষ করতে সোমবার সারাদিনই লাগতে পারে৷ এরপরই পুলিশ ও কেএমডিএ-র মধ্যে দফায় দফায় বৈঠক হয়৷

উল্লেখ্য,গত প্রায় এক বছর ধরে চিংড়িঘাটা উড়ালপুলের কাজ চলছে৷ গভীর রাতে ওই সেতু বন্ধ রেখে চলছিল কাজ৷ অবশেষে গত শুক্রবার রাত থেকে তিন দিনের জন্য বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে উড়ালপুলটি৷ কেএমডিএ ওই সেতুর স্বাস্থ্য পরীক্ষার কাজ করছে৷ সূত্রের খবর,প্রথমে কেএমডিএ-র পক্ষে পুলিশকে তিন দিনের কথা বলেছিল৷ সেই অনুযায়ী পুলিশ তিন দিন চিংড়িঘাটা উড়ালপুল বন্ধ রাখার নির্দেশ দেন৷ পরে যখন জানতে পারেন যে, সোমবার সকাল ৮টার মধ্যে উড়ালপুলের কাজ শেষ হচ্ছে না, তখন কলকাতা পুলিশ কেএমডিএ-র কাছে চিঠি দিয়ে আবেদন করেন, যাতে সোমবার সকাল ৮টায় উড়ালপুলটি খুলে দেওয়া হয়৷

পুলিশ সূত্রে খবর, শনি ও রবিবার ছুটির দিন ছিল, তাতেই বাইপাসের ট্রাফিক সামলাতে পুলিশকে হিমসিম খেতে হচ্ছে৷ আগামীকাল সোমবার সপ্তাহের কাজের প্রথম দিন৷ সুতরাং স্কুল ও অফিস টাইমে বাইপাসে আরও গাড়ির চাপ বাড়বে৷ ফলে ব্যাপক যানজটের সম্ভাবনা রয়েছে বাইপাসে৷ শুধু বাইপাস নয়, যানজট দেখা দিতে পারে বাইপাস থেকে সল্টলেকগামী রাস্তায়৷ এছাড়া মা উড়ালপুলে৷