স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: নিউ আলিপুরের রাজনন্দিনী পার্কের পর এবার ১১৭ নম্বর ওয়ার্ডের হিন্দুস্থান পার্কে ওপেন এয়ার ফ্রি জিমের ব্যবস্থা করল কলকাতা পুরসভা৷ সঙ্গে যোগা, ক্যারাটে ট্রেনিংয়ের ব্যবস্থাও থাকবে৷

হিন্দুস্থান পার্কে ফ্রি জিমের সঙ্গে উপরি হিসেবে থাকছে ফ্রি-তে যোগা, ক্যারাটে করার সুযোগও৷ এছাড়াও সপ্তাহে দুদিন শনি ও রবিবার ছোটদের মনোরঞ্জনের জন্য থাকছে কার্টুন নেটওয়ার্ক দেখার বিশেষ ব্যবস্থা৷ খোলা পার্কে বসে এলাকার কচি-কাঁচারা জায়েন্ট স্ক্রিনে দেখতে পারবে তাদের প্রিয় টম অ্যান্ড-জেরি, হাঁদা ভোদা৷ আাগামী ২৩ সেপ্টেম্বর হিন্দুস্থান পার্কের শুভ উদ্বোধন করবেন মেয়র পারিষদ (নিকাশি) তারক সিং৷

আরও পড়ুন- অটো দৌরাত্ম্য: নয়া দাওয়াই পরিবহণমন্ত্রীর

নিউ আলিপুরের রাজনন্দিনী পার্কের ওপেন এয়ার জিমের জনপ্রিয়তা সর্বজনবিদিত৷ খোলা আকাশের নীচে বিনা বিদ্যুতে এবং নিখরচায় এলাকার মানুষকে জিমের সুবিধা দিয়েছে কলকাতা পুরসভা৷ কিন্তু ওই একটি পার্কে নানা জায়গা থেকে মানুষ আসেন ফ্রি-তে জিমের সুবিধা নিতে৷ তাই এলাকার মানুষের দাবি মেনে ১১৭ নম্বর ওয়ার্ডের হিন্দুস্থান পার্কে একইরকম পরিষেবার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে৷ প্রতিদিন ভোর ৫টা থেকে সকাল ৯টা, আর বিকেল ৪টে থেকে রাত্রি ৯টা পর্যন্ত খোলা থাকবে পার্ক বলে জানা গেছে৷

আরও পড়ুন- আসানসোলে বাবুলের বিরুদ্ধে দায়ের হল অভিযোগ

ইতিমধ্যেই শহরের আরও পাঁচটি পার্ককে বেছে নিয়ে ওপেন এয়ার জিম তৈরির প্রথম ধাপের কাজ শুরু করেছে পুরসভা৷ সেই তালিকায় রয়েছে ওয়ার্ড নং ৫ -র টালা ঝিল পার্ক,ওয়ার্ড নং ১২-র দেশবন্ধু পার্ক, ওয়ার্ড নং ৮৫-র দেশপ্রিয় পার্ক, ওয়ার্ড নং ৩২-র প্রফুল্লকানন পার্ক ও ওয়ার্ড নং ৩৮-র বিরষামুন্ডা পার্ক৷ পুরসভার এক কর্তা জানান, ”পুরসভার ১৪৪ টি ওয়ার্ডে মোট ৭২০ টি পার্ক রয়েছে ৷ আসতে আসতে সব পার্কেই ওপেন এয়ার জিম তৈরি করা হবে, অবশ্যই যেখানে যথেষ্ট জায়গা রয়েছে সেখানে”৷

আরও পড়ুন- আরও গভীর হচ্ছে নিম্নচাপ, ২৪ ঘন্টায় ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস

অভিনব এই ভাবনা কার মস্তিষ্ক প্রসূত? এই অভিনব উদ্যোগের কারণই বা কি? মেয়র পারিষদ দেবাশিস কুমার জানান , ”রাজনন্দিনী পার্কের ওপেন এয়ার জিম দেখে অনুপ্রাণিত হই৷ মেয়র পারিষদ (নিকাশি) তারক সিং এর উদ্যোগে সেখানে এই জিম তৈরি হয়েছে৷ তিনি বিদেশে এই ব্যবস্থা দেখে এসে নিজের এলাকায় এই পরিষেবা চালু করেছেন৷ আর অনেক মানুষ টাকার অভাবে অন্যত্র গিয়ে শরীর চর্চা করতে পারে না৷ মূলত তাদের জন্যই এই ব্যবস্থা৷’’

আরও পড়ুন- বাগরি মার্কেট: আল্লাহর মেহেরবানি, ভগবানের তুষ্টির দিকে তাকিয়ে ব্যবসায়ীরা

এই ওপেন এয়ার জিম ব্যবহারের ক্ষেত্রে আলাদা করে মানুষ কে সময় বের করতে হয় না ৷ সকাল-সন্ধা ভ্রমনে গেলেই এই জিম ব্যবহার করে সুস্থ থাকতে পারবেন মানুষ ৷ পুরসভার এক কর্তা জানান, ” এই জিমে ওয়েট টুইস্টার, টুইট স্টেপার, চেস্ট প্রেসের মতো জিমের মেশিন ব্যবহার করা হবে৷ যা বিদ্যুতের সাহায্য ছাড়াই ব্যবহার করা যাবে৷ যার ফলে বিদ্যুতের খরচ বাঁচবে৷’’