স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: কলকাতাশ্রীর পাশাপাশি এবার কলকাতার পুজো উদ্যোক্তাদের জন্য আরও একটি বিশেষ পুরস্কারের ঘোষণা করেছিল কলকাতা পুরসভা৷ শর্ত ছিল, যে পুজো কমিটি যত ভাল ডেঙ্গু সচেতনা নিয়ে প্রচার চালাবে তাদেরই মিলবে এই বিশেষ পুরস্কারের স্বীকৃতি৷

মূলত শহরে ডেঙ্গু মোকাবিলার জন্যই এই সম্মানের নাম দেওয়া হয়েছে ‘স্বাস্থ্য বান্ধব শারদ সম্মান’ বলেই খবর পুরসভা সূত্রে। মেয়র পারিষদ (স্বাস্থ্য) অতীন ঘোষ জানান, ‘‘মশাবাহিত রোগ প্রতিরোধে সমস্ত পুজো কমিটির জনবলকে সেই অঞ্চলের মানুষের কাছে প্রচারের কাজে নিয়োজিত করতেই মূলত এই শারদ সম্মান৷”

পুরসভা সূত্রে খবর,‘স্বাস্থ্য বান্ধব শারদ সম্মান’ দিতে কলকাতা পুরসভা পুজো মন্ডপগুলিকে আটটি জোনে ভাগ করেছে। প্রতিটি জোনে তিনটি করে অর্থাৎ মোট ২৪টি পুজো কমিটিকে ‘সেরা ৩’ সম্মানে পুরস্কৃত করা হবে। এই ‘সেরা ৩’ পুরস্কার প্রাপক পুজো কমিটি পাবে নগদ ৩০ হাজার টাকা৷ এছাড়া প্রতিটি জোন থেকে আরও ৩টি অর্থাৎ মোট ২৪টি পুজোকে বিশেষ ‘মহানাগরিকে পছন্দ’ পুরস্কার দেওয়া হবে৷ এক্ষেত্রে মিলবে নগদ ৫ হাজার টাকা৷

কী ভাবে বিজয়ীদের বেছে নেবেন পুরকর্তারা?

আগামী ৪ ও ৫ অক্টোবর নিজ নিজ এলাকায় বাড়ি বাড়ি গিয়ে প্রচার করবে পুজো কমিটিগুলি৷ আর ৭ অক্টোবর ডেঙ্গু প্রতিরোধী শিবির গড়ে প্রচার করতে হবে৷ প্রমাণ স্বরূপ তার ভিডিও ক্লিপিং ও ফটো সিডি আকারে জমা দিতে হবে৷ জোন অনুযায়ী সেরা দশ ঘোষিত হবে ১১ অক্টোবর৷ পঞ্চমীর দিন হবে চূড়ান্ত ফল ঘোষণা৷

প্রাথমিক পর্যায়ে প্রতিটি ওয়ার্ডে গঠিত কমিটি ১০০ নম্বরের মধ্যে ৬০ নম্বরের বিচার করবে৷ সেই বিচারের ভিত্তিতে প্রতিটি বরো থেকে ৫টি পুজোকে চূড়ান্ত পর্যায়ের জন্য মনোনীত করা হবে৷ এরপর চতুর্থীর দিন কেন্দ্রীয়ভাবে বিভিন্ন দল ৮টি জোন পরিদর্শন করে মণ্ডপের সার্বিক মান ও ডেঙ্গু প্রতিরোধী স্টল গঠনের প্রেক্ষিতে বাকি ৪০ শতাংশ নম্বর দেবে৷