স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: ১ জুন থেকে খুলে যাচ্ছে কলকাতার পুর বাজারগুলি। জোড়-বিজোড় নীতি মেনে খুলছে বাজারগুলি।শনিবার কলকাতা পুরসভার প্রশাসক তথা পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, বাজার খোলার পর আশপাশের এলাকায় করোনা রোগীর সন্ধান পাওয়া গেলে, বাজারগুলি ফের বন্ধ করে দেওয়া হবে।

মার্চের শেষ সপ্তাহে দেশ জুড়ে লকডাউন ঘোষণা হতেই বন্ধ হয় কলকাতার সব বাজার এবং শপিং মল। পরবর্তীকালে নিত্য প্রয়োজনীয় হিসেবে আনাজ এবং মুদির দোকান খোলার অনুমতি দেওয়া হলেও বাকি সব দোকান (নন-এসেনশিয়াল) বন্ধই রাখা হয়। তবে লকডাউনের শুরু থেকেই বন্ধই রয়েছে নিউ মার্কেট, গড়িয়াহাট বাজার, ভিআইপি বাজার, এন্টালি মার্কেট-সহ কলকাতা পুরসভার অধীনস্থ ৪৬টি বাজার।

আগামী ১ জুন, সোমবার সেগুলি খুলে দেওয়া হচ্ছে। তবে শর্তসাপেক্ষে।বাজার খোলার আগে স্যানিটাইজেশন করা হচ্ছে। পুরসভার নির্দেশ, বাজার খোলা থাকবে সকাল ১০টা থেকে বিকেল সাড়ে পাঁচটা পর্যন্ত। তার পরেই বাজারের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হবে। তবে কোনও বাজার যদি কনটেনমেন্টের জোনের আওতায় থাকে, সেগুলি খোলা হবে না বলেই খবর।

পুরসভা সূত্রের খবর, পুলিশ এবং স্বাস্থ্য দফতরের সঙ্গে বৈঠকের পরেই কোন কোন বাজার খোলা হবে তার সিদ্ধান্ত হয়েছে। পুর বাজারগুলি আপাতত ‘ক্লিন জ়োনে’ রয়েছে বলে খবর। তবে যদি দেখা যায় বিশেষ কোনও বাজারের কাছে করোনা সংক্রমণের খবর মিলেছে, তা হলে সেই বাজার আবার বন্ধ করে দেওয়া হবে।

এদিন ফিরহাদ হাকিম জানিয়েছেন, দোকানদার ও গ্রাহক দুজনকেই মাস্ক পরতে হবে। বাজারে যাতে একসঙ্গে অনেকে না ঢুকে পড়েন, তা দেখার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে এক বেসরকারি সংস্থার কর্মীদের। তবে সেদিকে নজর রাখবে স্থানীয় পুলিশও। গায়ের জোর স্থানীয় বাসিন্দারা বাজারে ভিড় জমালে বন্ধ করে দেওয়া হবে বাজার।বাজারের বাইে রাখা থাকবে সাবান ও জল। হাত ধুয়ে তবেই ঢোকা যাবে বাজারে।

Proshno Onek II First Episode II Kolorob TV