মাউন্ট মাউনগানুই: ব্যাটসম্যানের পাশাপাশি উইকেটরক্ষক হিসেবে সম্প্রতি নয়া দায়িত্ব ন্যস্ত হয়েছে তাঁর কাঁধে। কোহলির দলে কেএল রাহুলের ভূমিকা ক্রিকেট অনুরাগীদের মনে করিয়ে দিচ্ছে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের দলে রাহুল দ্রাবিড়ের ভূমিকাকে। তবে নতুন ভূমিকায় কিন্তু বেশ স্বচ্ছন্দই দেখাচ্ছে জুনিয়র রাহুলকে। কিউয়িদের কাছে ওয়ান-ডে সিরিজে ০-৩ ব্যবধানে পর্যুদস্ত হতে হলেও রাহুল কিন্তু রান করে যাচ্ছেন নীরবে।

মঙ্গলবার দলের হোয়াইটওয়াশ হওয়ার দিনেও কেরিয়ারে চতুর্থ ওয়ান-ডে শতরানটি পূর্ণ করে ফেললেন দক্ষিণী ব্যাটসম্যান। আর সেই সঙ্গেই কিংবদন্তি রাহুল দ্রাবিড়ের ২১ বছর আগের একটি রেকর্ড স্পর্শ করলেন জুনিয়র রাহুল।

উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান হিসেবে ওয়ান-ডে’তে এতদিন এশিয়ার বাইরে সেঞ্চুরি হাঁকানোর রেকর্ড ছিল কেবল রাহুল দ্রাবিড়ের ঝুলিতে। বে ওভালে শতরান হাঁকিয়ে ভারতের দ্বিতীয় উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান হিসেবে এদিন রাহুল দ্রাবিড়ের অনন্য সেই নজির স্পর্শ করলেন কেএল। ভারতের প্রথম উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান হিসেবে এশিয়ার বাইরে রাহুল দ্রাবিড় সেঞ্চুরিটি করেছিলেন ১৯৯৯ বিশ্বকাপে।

টনটনে সেবার ব্যাট হাতে ১৪৫ রানের পাশাপাশি দলের উইকেটরক্ষার দায়িত্বও ছিল দ্রাবিড়ের হাতে। শুধু তাই নয়, সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের সঙ্গে জুটি বেঁধে ওই ম্যাচে ৩১৮ রানের মহামূল্যবান পার্টনারশিপ গড়েছিলেন রাহুল শারদ দ্রাবিড়। ওয়ান-ডে ক্রিকেটে যা তৃতীয় সর্বোচ্চ।

এদিন বে ওভালে ভারতের দ্বিতীয় উইকেটরক্ষক হিসেবে এশিয়ার বাইরে শতরান করলেন লোকেশ রাহুল। সিনিয়র দ্রাবিড়ের সঙ্গে যা অচিরেই স্থান করে নিল রেকর্ডের খাতায়। নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে মঙ্গলবার সিরিজের তৃতীয় ম্যাচে ১১৩ বলে ১১২ রানের দুরন্ত ইনিংস খেলেন কেএল রাহুল। পাশাপাশি স্টাম্পের পিছনে উইকেটরক্ষার দায়িত্বও পালন করেন দক্ষিনী ক্রিকেটার।

তবে এদিন কাজে আসেনি রাহুলের তিন অঙ্কের রান। প্রথমে ব্যাট করে ভারতের ছুঁড়ে দেওয়া ২৯৭ রানের লক্ষ্যমাত্রা ১৭ বল বাকি থাকতেই ছুঁয়ে ফেলে কিউয়িরা। নিউজিল্যান্ডের জয়ে ব্যাট হাতে মুখ্য ভূমিকা নেন দুই ওপেনার মার্টিন গাপ্তিল ও হেনরি নিকোলস। গাপ্তিলের ধুন্ধুমার ৪৬ বলে ৬৬ রানের পাশাপাশি নিকোলসের ব্যাট থেকে আসে মূল্যবান ৮০ রান। রাহুল ছাড়া ভারতের হয়ে বড় রানের ইনিংস খেলেন শ্রেয়স আইয়ার (৬২)।