আবুধাবি: গত ম্যাচে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের বিরুদ্ধেই নেতা বদল হয়েছে কেকেআর-এর৷ কিন্তু ভাগ্য বদল হয়নি নাইটদের৷ মুম্বইয়ের কাছে লজ্জাজনক হারের পর রবিবার শেখ জায়েদ স্টেডিয়ামে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বিরুদ্ধে বড় রানের টার্গেট দিতে পারলেন না নাইট ব্যাটসম্যানরা৷ টস হেরে প্রথম ব্যাটিং করে সানরাইজার্সের সামনে রানের ১৬৪ টার্গেট রাখে কেকেআর৷

শুরুটা ভালো করলেও দ্রুত কয়েকটি উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যায় কেকেআর৷ কিন্তু ক্যাপ্টেন ও এক্স ক্যাপ্টেনের ব্যাটে লড়াইয়ে ফেরে নাইটরা৷ অধিনায়ক ইয়ন মর্গ্যান ও প্রাক্তন অধিনায়ক দীনেশ কার্তিকের পঞ্চম উইকেটে ৩০ বলে অবিভিক্ত ৫৮ রানের পার্টনারশিপে পাঁচ উইকেটে ১৬৩ রান তোলে কলকাতা নাইট রাইডার্স৷

টস জিতে এদিন প্রথমে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন সানরাইজার্স ক্যাপ্টেন ডেভিড ওয়ার্নার৷ শুভমন গিল ও রাহুল ত্রিপাঠির দারুণ শুরু করলেও বড় রান তুলতে পারেনি কেকেআর৷ ওপেনিং জুটিকে ৬ ওভারে ৪৮ রান তোলেন গিল ও ত্রিপাঠি৷ কিন্তু পাওয়ার প্লে-ওভারের শেষ বলে বোল্ড হয়ে যান ত্রিপাঠি৷ ১৬ বলে ২৩ রান করে নটরাজনের বলে ডাগ-আউটে ফেরেন তিনি৷

এরপর নীতিশ রানা ক্রিজে এসে আক্রমণাত্মক শুরু করেন৷ কিন্তু ৩৭ বলে ৩৬ রানে গিল আউট হওয়ার পর নাইটদের ছন্দপতন হয়৷ রানাও দ্রুত ডাগ-আউটে ফেরেন৷ ২০ বলে ২৯ রান করে দায়িত্বজ্ঞানহীন শট নিয়ে আউট হন রানা৷ চার নম্বরে ব্যাট করতে নেমে এদিনও ব্যর্থ হন আন্দ্রে রাসেল৷ এদিন ১১ বলে মাত্র ৯ রান করে আউট হন ক্যারিবিয়ান এই অল-রাউন্ডার৷

 

ছ’নম্বরে ব্যাট করতে নেমে কেকেআর ইনিংসের হাল ধরেন প্রাক্তন অধিনায়ক কার্তিক৷ ক্যাপ্টেন মর্গ্যানের সঙ্গে ঝোড়ো হাফ-সেঞ্চুরির পার্টনারশিপে দেড়শো রানের গণ্ডি টপকাতে পারে কেকেআর৷ মাত্র ১৪ বলে ২টি ছয় ও ২টি বাউন্ডারি মেরে ২৯ রানে অপরাজিত থাকেন কার্তিক৷ স্ট্রাইক-রেট ২০৭.১৪৷ ক্যাপ্টেন মর্গ্যান অপরাজিত থাকেন ৩৪ রানে৷ ২৩ বলের ইনিংসে একটি ওভার বাউন্ডারি ও তিনটি বাউন্ডারি মেরে ইনি্ংসের শেষ বলে আউট হন নাইট অধিনায়ক৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।