কলকাতা: আইপিলের কোয়ালিটি আইপিএল’কে ‘স্পেশাল’ বানিয়েছে বিশ্বের দরবারে। তা যখনই অনুষ্ঠিত হোক না কেন, আইপিএলের মান নিয়ে যেন কোনও আপোস করা না হয়। সাফ জানালেন কলকাতা নাইট রাইডার্স সিইও বেঙ্কি মাইসোর। এমনকি কেকেআর সিইও’র কথায় অধিকাংশ আইপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজিই চায় ‘কমপ্লিট’ টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হোক।

করোনার জেরে অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত হয়ে যাওয়ার পর সাম্প্রতিক সময়ে ফ্র্যাঞ্চাইজি টুর্নামেন্ট নিয়ে তৈরি হয়েছে নানা জল্পনা, নানা সম্ভাবনা। শোনা গিয়েছিল সীমান্ত পারাপারে নিষেধাজ্ঞা সহ নানা বিষয় বলবৎ থাকার কারণে বিদেশি ক্রিকেটারদের ছাড়াই অনুষ্ঠিত হবে আইপিএল। এমনটা বাস্তবে হলে টুর্নামেন্টের মানের সঙ্গে আপোস করা হবে বলে মনে করছেন বেঙ্কি। তাঁর সাফ কথা, ‘আমি এটা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি যে তোমার কাছে যে প্রোডাক্ট রয়েছে তার কোয়ালিটির সঙ্গে কখনও আপোস করো না।’

কেকেআর সিইও’র আরও সংযোজন, ‘আমাদের কাছে যে প্রোডাক্টটা রয়েছে তার কোয়ালিটিই ওটাকে ভীষণ স্পেশাল বানিয়েছে। তাই আমার মতে টুর্নামেন্টটা পুরোদমে আয়োজন করাটাই বুদ্ধিমানের কাজ হবে। ম্যাচ সংখ্যা একই রেখে, দেশি-বিদেশি ক্রিকেটারদের অংশগ্রহণেই আয়োজন করা হোক আইপিএল।’ এর আগে করোনা আবহে আইপিএল আয়োজন ঘিরে জটিলতা দেখে রাজস্থান রয়্যালস কেবল দেশীয় ক্রিকেটারদের নিয়ে টুর্নামেন্ট আয়োজনের প্রস্তাব দিয়েছিল। যদিও সেই প্রস্তাব খন্ডন করে দিল্লি ক্যাপিটালস আগেই জানিয়েছিল, ‘বিদেশিহীন আইপিএল অনেকটা সৈয়দ মুস্তাক আলি টুর্নামেন্টের মতো।’ এখন দেখার বিসিসিআই কী সিদ্ধান্ত নেয়।

অক্টোবরে টি২০ বিশ্বকাপ নিয়ে আইসিসি’র গতকালের বৈঠকে সিদ্ধান্ত ঝুলে থাকলেও বিসিসিআই নাকি আইপিএল আয়োজনের প্রস্তুতি তলায়-তলায় শুরু করে দিয়েছে। টাইমস অফ ইন্ডিয়ার এক রিপোর্ট অনুযায়ী আইপিএল আয়োজনের ব্যাপারে সম্প্রতি রাজ্য ক্রিকেট সংস্থাগুলোকে খোলা চিঠি প্রদান করেছেন বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। সেখানে স্পষ্টভাবে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে খুব শীঘ্রই ফ্র্যাঞ্চাইজি টুর্নামেন্ট নিয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে।

রেভিনিউ কম হবে জেনেও খালি স্টেডিয়ামেই টুর্নামেন্ট আয়োজনে তৈরি বিসিসিআই। সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় তাঁর চিঠিতে লিখেছেন, ‘দর্শকশূন্য স্টেডিয়ামে হলেও বিসিসিআই চলতি বছর আইপিএল আয়োজন করার ব্যাপারে সম্ভাব্য সমস্ত বিষয়গুলো নিশ্চিত করতে চাইছে। অনুরাগী, ফ্র্যাঞ্চাইজি, ব্রডকাস্টার, স্পনসর সহ অন্যান্য স্টকহোল্ডাররাও অধীর আগ্রহে আইপিএলের দিকে তাকিয়ে আছে।’

চিঠিতে আরও জানানো হয়েছে, ‘ভারত এবং অন্যান্য দেশের অসংখ্য ক্রিকেটার আইপিএলে অংশগ্রহণ করতে চেয়ে আগ্রহ প্রকাশ করেছে। আমরা ভীষণভাবে আশাবাদী। বিসিসিআই খুব শীঘ্রই আইপিলের ভবিষ্যৎ নির্ধারণ করবে।’

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ