মুম্বই: এ যেন নাইটদের পোস্ট নববর্ষের সেল দিল কোহলি অ্যান্ড কোম্পানি৷ শনিবার নিজেদের ডেরায় সানরাইজার্স হায়দরাবাদকে হারিয়ে দেওয়ায় নাইটদের প্লে-অফের টিকিটের আরও কাছে পৌঁছে দিল আরসিবি৷

অঙ্ক ১– শনিবাসরীয় হাইভোল্টেজ ম্যাচে সানরাইজার্সের হারের পর অঙ্ক পরিষ্কার৷ মুম্বইয়ে রোহিত অ্যান্ড কোম্পানিকে হারাতে পারলেই ঝুলিতে আরও ২ পয়েন্ট পুরে নিয়ে ১৪ পয়েন্টে পৌঁছে যাবে কলকাতা নাইট রাইডার্স৷ সেখানেই ১৪ ম্যাচ শেষে প্লে-অফ নাইটদের প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী সানরাইজার্স পরে থাকবে ১২ পয়েন্টে৷ কমলা ব্রিগেডকে পিছনে ফেলে তখন গ্রুপের চতুর্থ দল হিসেবে প্লে-অফে এন্ট্রি পাবে দীনেশ অ্যান্ড কোম্পানি৷

আরও পড়ুন- সানরাইজার্সকে হারিয়ে জয় দিয়ে অভিযান শেষ আরসিবি’র, নাইটদের সুযোগ করে দিল কোহলিরা

অঙ্ক-২ মুম্বইয়ের বিরুদ্ধে ম্যাচ হারলেও নাইটদের সামনে সুযোগ থাকছে প্লে-অফ নিশ্চিত করার৷ ম্যাচ হারলে ১৪ ম্যাচ শেষে কেকেআরের পয়েন্ট দাঁড়াবে ১২৷ ১৪ ম্যাচ শেষে সানরাইজার্সের পয়েন্টও ১২৷ সেক্ষেত্রে দুই দলের রান রেট বিচার্য হবে৷ এমনিতেই মোহালিতে ২ ওভার বাকি থাকতে পঞ্জাবকে হারানোয় নেট রান রেটে সুবিধে পেয়েছে নাইটরা৷ শেষ ম্যাচ মুম্বইয়ের কাছে হতশ্রী হার না হলে সেক্ষেত্রে ১২ পয়েন্ট নিয়েও সানরাইজার্সকে টপকে প্লে-অফ খেলতে পারে কেকেআর৷ ম্যাচের আগের পয়েন্ট টেবিলে অবশ্য নেট রান রেটে উইলিয়ামসনরা এগিয়ে রয়েছে৷

আরও পড়ু়ন- ‘দশমী’তে ক্ষমা চাইলেন কোহলি

অঙ্ক ৩– নাইটরা মুম্বইয়ের বিরুদ্ধে ম্যাচ হারলে লড়াই শুধু সানরাইজার্সের বিরুদ্ধেই নয়৷ তখন লড়াই হবে পঞ্জাবের বিরুদ্ধেও৷

রবিরার চেন্নাইয়ের বিরুদ্ধে ঘরের মাঠে ম্যাচ খেলবে পঞ্জাব৷ অশ্বিনরা ধোনিদের বড় ব্যাবধানে হারাতে পারলে সেক্ষেত্রে ১৪ ম্যাচ শেষে ১২ পয়েন্টে পৌঁছবে৷ বড় ব্যবধানে হারালে তখনই একমাত্র রান রেটের লড়াইয়ে এগিয়ে আসবে পঞ্জাব৷ অন্যদিকে ১৪ ম্যাচ শেষে সানরাইজার্সের পয়েন্টও ১২৷ নাইটরাও ম্যাচ হারলে ১২ পয়েন্টেই শেষ করবে৷ তিন দলের মধ্যে নেট রান রেটের বিচারে প্লে-অফে এন্ট্রি পাবে এক দল৷ সমীকরণ এমন দাঁড়ালে নাইট বা সানরাইজার্সের মধ্যে এক দলের শিঁকে ছিড়তে পারে৷ কারণ এই দুই দলের রান রেট পসিটিভ রয়েছে, সেখানে পঞ্জাবের রান রেট এখন নেগেটিভ৷

আরও পড়ুন-আইপিএলে সবচেয়ে কম বয়সে হাফ-সেঞ্চুরির রেকর্ড প্ররাগের

শেষ পর্যন্ত চতুর্থ দল হিসেবে কে দ্বাদশ আইপিএলের প্লে-অফে পৌঁছয়, উত্তরের জন্য ভারতীয় আইপিএল জনতার সব চোখ থাকবে মুম্বইয়ের ওয়াংখেড়েতে৷