মুম্বই: বিখ্যাত গায়ক কিশোরকুমার চারবার বিয়ে করেছিলেন। যাদের সঙ্গে তার বিয়ে হয়েছিল তারা প্রত্যেকেই সিনেমা জগতেরই লোক। তারা ছবির নায়িকা এমনকি পাশাপাশি কেউ গায়িকাও বটে।

কিশোর কুমারের সঙ্গে প্রথম বিয়ে হয়েছিল রুমা গুহ ঠাকুরতার। তিনি অভিনেত্রী তথা গায়িকা। রুমার মা সতী দেবী ছিলেন সেই যুগের বিখ্যাত গায়িকা। বাবা সত্যেন ঘোষ। মা সতী দেবী, আলমোড়ায় উদয় শংকর কালচার সেন্টারের মিউজিক এন্সম্বলের সদস্য ছিলেন ও পরে মুম্বইয়ে পৃথ্বী থিয়েটারে মিউজিক ডিরেকটার ( দেশের প্রথম মহিলা সংগীত পরিচালক) হন তাই রুমার ছেলেবেলা কেটেছে আলমোড়া ও মুম্বইয়ে। সতী দেবীর পিসতুতো ভাই হলেন বরেণ্য চিত্রপরিচালক সত্যজিৎ রায়।

১৯৫০ সালে কিশোর কুমারের সঙ্গে রুমার বিয়ে হয় ও তাদের পুত্র সুগায়ক অমিত কুমার। ১৯৫৮ সালে তার দাম্পত্য জীবনে বিচ্ছেদ হয় এবং ১৯৬০ সালে অরূপ গুহঠাকুরতাকে বিবাহ করেন তিনি । বহুু ছবিতে অভিনয়়় করার পাশাপাশির তিনি গান গেয়েছেন এবং ১৯৫৮ সালে ক্যালকাটা ইয়ুথ কয়্যার প্রতিষ্ঠা করেন রুমা গুহ ঠাকুরতা।

এরপর ‘ঢাকে কি মালমাল’ (১৯৫৬) ছবিতে অভিনয় করতে গিয়ে কিশোর কুমারের সঙ্গেপরিচয় হয়েছিল বলিউডের নায়িকা মধুবালার। ১৯৬০ সালে তাদের বিয়ে হয়। মধুবালার হৃৎপিন্ডে জন্মগত ছিদ্র ছিল। যার অধুনিক নাম ভেন্ট্রিকুলার সেফটাল ডিফেক্ট (ভিএসডি)। ১৯৬০ সালে কিশোর কুমারকে বিয়ের পর চিকিৎসার জন্য লন্ডন যান মধুবালা। কিন্তু চিকিৎসকরা জানিয়ে দেন, বড়জোর এক বছর বাঁচবেন তিনি। কিন্তু পরে আরও কয়েক বছর বেঁচে ছিলেন। ১৯৬৯ সালে মারা যান।

এর বেশ কিছুদিন পরে সাতের দশকে বলিউডের অভিনেত্রী যোগিতা বালি সঙ্গে কিশোরকুমারের ঘনিষ্ঠতা হয়।‌ ১৯৭৬ সালে কিশোরকুমার যোগিতা বালিকে বিয়ে করেন। তবে সে বিয়েও বেশিদিন টেকেনি। ১৯৭৮ সালে তাদের ডিভোর্স হয়ে যায়। পরবর্তীকালে মিঠুন চক্রবর্তী কে বিয়ে করেন যোগিতা বালি।

এরপর কিশোরকুমার বিয়ে করেন অভিনেত্রী লীনা চন্দ্রাভারকারকে। কিশোর কুমারের ছোট ছেলে সুমিত বলিউডের এই অভিনেত্রী লীনার পুত্র। ১৯৮০ সালে লীনার সঙ্গে বিয়ে হয়েছিল কিশোর কুমারের। তাদের দুজনের বয়সের পার্থক্য ছিল প্রায় কুড়ি বছরের। ১৯৮৭ সালে কিশোর কুমারের মৃত্যু হয়।

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা