মুম্বই: কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে কৃষক বিক্ষোভের রেশ বিভিন্ন রাজ্যে ছড়িয়েছে। সাধারণতন্ত্র দিবসে দিল্লি ঘিরে রাখা কৃষকদের ট্রাকটর মার্চের সমর্থনে বিরাট লং মার্চে ফের শিরোনামে মহারাষ্ট্র।

সারা ভারত কৃষকসভা( AIKS) নাসিক থেকে মুম্বই এই লং মার্চ করে। ১৮০ কিলোমিটার লং মার্চের চেহারা দেখে ফের আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমে শোরগোল পড়েছে। আলোচনায় উঠে আসছে ২০১৮ সালের লং মার্চ প্রসঙ্গ।

মহারাষ্ট্রের কৃষকরাও কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে সরব হয়েছেন। কৃষক প্রতিনিধিরা দিল্লির কাছে অবস্থানরত পাঞ্জাব, হরিয়ানা, রাজস্থান, উত্তরপ্রদেশ ও উত্তরাখণ্ডের লক্ষ লক্ষ কৃষকদের সঙ্গে আন্দোলনে সামিল হয়েছেন। তামিলনাড়ু, অন্ধ্র প্রদেশ, কেরলেও তীব্র প্রতিবাদ হচ্ছে।

এদিকে মহারাষ্ট্রের কৃষক মিছিল ফের আলোচনার কেন্দ্রে। সারা ভারত কৃষক সভার মহারাষ্ট্র রাজ্য কমিটির আহ্বানে ২১টি জেলার কয়েক হাজার কৃষক মিছিলে অংশ নেন।

এআইকেএস জানিয়েছে, মুম্বাইয়ের আজাদ ময়দানে সমাবেশের আয়োজন করেছে কৃষক-শ্রমিক সংগঠন। এখানে থাকবেন, সংগঠনের সর্ব ভারতীয় সম্পাদক হান্নান মোল্লা। তিনি আগেই বলেছেন, কৃষি আইন বাতিল না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।