ওয়াশিংটন: সামনেই আমেরিকায় নির্বাচন। নভেম্বরেই হবে প্রেসিডেন্ট পদের জন্য লড়াই। আর এবার প্রেসিডেন্ট পদের জন্য লড়বেন কিম কার্দাশিয়ানের স্বামী তথা ব়্যাপার কেনি ওয়েস্ট।

রবিবার নিজেই ট্যুইটারে একথা ঘোষণা করেছেন তিনি। স্বাভাবিকভাবেই তাঁর এই ট্যুইট ঘিরে রীতিমত তোলপাড় শুরু হয়েছে।

ডোনাল্ড ট্রাম্পের সমর্থক হিসাবেই পরিচিত ছিলেন কেনি, সে জায়গায় আচমকা ট্রাম্পের বিরুদ্ধে নির্বাচনী আসরে নামার ঘোষণা করে দিলেন তিনি। প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের মাত্র মাস চারেক আগে এই ঘোষণা করলেন তিনি।

বর্তমান মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ট ট্রাম্প এবং তাঁর প্রধান বিরোধী,ডেমোক্র্যাটিক দলের প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী জো বিডেনের বিরুদ্ধে নির্বাচনী ময়দানে লড়াই করতে হবে কেনি ওয়েস্টকে।

টুইট বার্তায় কেনি লেখেন, এখন সময় এসেছে যাতে আমরা আমেরিকাকে দেওয়া প্রতিশ্রুতি রাখতে পারি,ভগবানের প্রতি বিশ্বাস রেখে,ঐক্যের প্রতি দৃষ্টি বজার রেখে আমাদের ভবিষ্যত গড়তে হবে। আমি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হওয়ার দৌড়ে নামলাম’।

যদিও এখন পরিষ্কার নয় নির্বাচনে লড়বার আনুষ্ঠানিক প্রক্রিয়া এখনও কেনি শুরু করেছেন কিনা।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে স্বাধীন প্রার্থীদের মনোনয়ন জমার কোনও সময়সীমা বহু স্টেটেই এখনও বেঁধে দেওয়া হয়নি। এর আগে বহুবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে হোয়াইট হাউসে সাক্ষাত্ করেছেন কেনি ওয়েস্ট ও তাঁর পত্নী কিম কার্দাশিয়ান। সেই ছবিও প্রকাশিত হয়েছে।

২০১৮ সালে কেনির হোয়াইট হাউস ভ্রমণ নিয়ে কম চর্চা হয়নি। সেই সময় লাল রঙের টুপিতে ‘মেক আমেরিকা গ্রেট এগেন’ স্লোগান সহ ট্রাম্পকে আলিঙ্গনরত কেনির ছবি ভাইরাল হয়েছিল সোশ্যাল মিডিয়ায়।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ