তিরুঅনন্তপুরম: প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর প্রশংসা করায় কংগ্রেস থেকে বহিস্কার করা হয় এক মুসলিম নেতাকে। সেই নেতারই এবার গেরুয়া শিবিরের যোগ দেওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। সোমবারই তিনি মোদী ও অমিত শাহের সঙ্গে দেখা করতে যাবেন বলে সূত্রের খবর।

চলতি মাসের শুরুর দিকে দল থেকে বহিস্কার করা হয় কেরলের এই কংগ্রেস নেতাকে৷ এই নেতার নাম এ পি আবদুল্লা কুট্টি। মোদী বন্দনা করায় স্বাভাবিকভাবেই শাস্তির মুখে যে পড়তে হয় তাঁকে। বহিস্কারের খবর যখন তিনি পান প্রথম প্রতিক্রিয়ায় বলেন, ‘‘রাজ্য সভাপতির কাছ থেকেই এটাই আশা করেছিলাম৷ আমি সুযোগ সন্ধানী নই৷ যেটা সত্যি সেটাই বলেছিলাম৷’’

কেরল কংগ্রেস থেকে বহিস্কার করা হয় এ পি আবদুল্লা কুট্টিকে৷ কেরল প্রদেশ কংগ্রেসের শীর্ষস্তরের নেতা বলেই তিনি পরিচিত৷ লোকসভা ভোটে বিজেপির দারুণ ফলাফল নিয়ে সম্প্রতি মোদীর প্রশংসায় পঞ্চমুখ হন তিনি৷ ফেসবুকে দীর্ঘ পোস্ট লেখেন তিনি৷ সেখানে মোদী সরকারের স্বচ্ছ ভারত অভিযান ও উজ্জলা যোজনা প্রকল্পের তারিফ করেন৷

আবদুল্লাকুট্টির মতে, এই সব প্রকল্পের মধ্য দিয়ে মহাত্মা গান্ধীর উন্নয়নের আদর্শ প্রতিফলিত হয়েছে৷ কেরল কংগ্রেসের এই নেতা লেখেন, মোদীর উন্নয়ন মডেলকে মানুষ গ্রহণ করেছেন৷ তার জন্যই এই বিরাট জয়৷ নরেন্দ্র মোদী মহাত্মা গান্ধীর নীতিকে বাস্তবায়িত করে দেখিয়েছেন৷ মহাত্মার নীতি বলে, কোনও নীতি গ্রহণ করার আগে গরিব মানুষের কথা আগে ভাববে৷ স্বচ্ছ ভারত অভিযান ও উজ্জলা যোজনা সেই নীতিরই প্রতিফলন৷ স্বচ্ছ ভারতে দেশে ৯কোটি ২৬ লক্ষ শৌচালয় তৈরি হয়েছে৷ দেশের মানুষকে বিনামূল্যে বিদ্যুত পরিষেবা ও গ্যাসের সংযোগ দিয়েছেন৷ এই সব কারণে মোদীর এত গ্রহণযোগ্যতা, এত তাঁর জনপ্রিয়তা৷

আবদুল্লাকুট্টির এই মোদী স্তুতি ভালো ভাবে নেয়নি কংগ্রেস৷ সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে শোকজ করা হয়৷ পাঁচদিনের মধ্যে কারণ দর্শাতে বলা হয়৷ দলের একাংশের মতে, বিজেপিতে যাবেন বলে আবদুল্লাকুট্টির এই ভোলবদল। এবার সেই সম্ভাবনাই সত্যি হচ্ছে বলে মনে করা হচ্ছে।