নয়াদিল্লি: দু’দিন বাদেই পালিত হবে দেশের স্বাধীনতা দিবস। প্রত্যেকবারের মত এবারও লাল কেল্লায় গিয়ে পতাকা উত্তোলন করবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। স্বাভাবিকভাবেই নিরাপত্তার কোনও খামতি রাখা হচ্ছে না। তবে, এরই মধ্যে নিষিদ্ধ পতাকা তোলার হুমকি দিল খালিস্তানিরা।

দিল্লি পুলিশের চিন্তা বাড়িয়ে নিষিদ্ধ সংগঠন শিখ ফর জাস্টিস এমনই হুমকি দিয়েছে। স্বাধীনতা দিবসে লাল কেল্লায় খালিস্তানের পতাকা ওড়ালে ১ লক্ষ ২৫ হাজার ডলার পুরস্কার ঘোষণা করেছে এই সংগঠন। এই হুমকির বিষয়টি সামনে আসতেই নিরাপত্তা আরও জোরদার করা হয়েছে।

দেশের স্বাধীনতা দিবসে ঐতিহাসিক লাল কেল্লায় খালিস্তানিদের এই ধরনের যে কোনও কর্মকাণ্ড রুখতে সুরক্ষা বলয় আঁটোসাঁটো করছে পুলিশ। যদি কেউ স্বাধীনতা দিবসে লালকেল্লায় খালিস্তানের পতাকা উত্তোলন করতে পারে, তাহলে তাকে ১ লক্ষ ২৫ হজার মার্কিন ডলার দিয়ে পুরস্কৃত করা হবে। এমনই দুঃসাহসিক বিজ্ঞাপন দিয়েছিল শিখ ফর জাস্টিস।

সোশ্যাল মিডিয়ায় দুঃসাহসিক পোস্ট করে এই হুমকি দিয়েছে ওই সংগঠন। তারপর থেকেই জোর কদমে চলছে তল্লাশি। রাজধানীর প্রধান বাজারগুলি চষে ফেলেছে পুলিশ। নজরদারি জোরদার করা হয়েছে সন্দেহভাজনদের উপর। শুধু তাই নয়, স্বাধীনতা দিবসের দিন সুরক্ষা নিশ্চিত করতে লাল কেল্লা ও আশেপাশে মোতায়েন করা হবে ৪৫ হাজার জওয়ান। হাতে স্নাইপার নিয়ে লাল কেল্লার পাঁচ কিলোমিটারের মধ্যে প্রতিটি উঁচু বিল্ডিংয়ে থাকবেন তাঁরা।

নিরাপত্তা সংস্থাগুলি অবশ্য জানিয়েছে এটি আম জনতার মধ্যে ভীতি ছড়ানোর একটি প্রচেষ্টা মাত্র। ক্রমাগত সোশ্যাল মিডিয়া উস্কানিমূলক পোস্ট করে চলেছে SFJ। নিষিদ্ধ এই সংগঠনের এক নেতা বলেছেন, ১৫ অগস্ট তাঁদের কাছে শাসকের পরিবর্তন ছাড়া আর কিছু না।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও