ঢাকা: একাধিক মামলা চলছে তাঁর বিরুদ্ধে৷ সব থেকে উল্লেখযোগ্য হল জিয়া দাতব্য সংস্থার কেলেঙ্কারি৷ এই মামলা জেল হয়েছে বাংলাদেশের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার৷

তবে এর পাশাপাশি চলছে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত ও বঙ্গবন্ধুকে কটূক্তির অভিযোগে মানহানির মামলা৷ এতে জামিন পেলেন বেগম জিয়া৷ তবে জিয়া সংস্থার কেলেঙ্কারির মামলায় বিএনপি সুপ্রিমো যদিও কারাবন্দি থাকবেন৷ তিনি অসুস্থ, চিকিৎসা চলছে৷

ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত ও বঙবন্ধুকে কটূক্তির মামলায় আদালত খালেদা জিয়াকে ৬ মাসের জামিন দিয়েছে হাইকোর্ট৷ মঙ্গলবার বিচারপতি মুহাম্মদ আবদুল হাফিজ ও বিচারপতি আহমেদ সোহেলের হাইকোর্ট বেঞ্চ এই আদেশ দেন। ২০১৪ সালে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত ও ২০১৬ সালে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কটূক্তি করার অভিযোগে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালত মামলা দুটি বিচারাধীন।

গত বছরের ৩১ ডিসেম্বর শাহবাগের ইঞ্জিনিয়ারিং ইন্সটিটিউটে বিএনপির শাখা সংগঠন ছাত্রদলের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে খালেদা জিয়া অভিযোগ করেন, বঙ্গবন্ধু দেশের স্বাধীনতা চাননি। তিনি চেয়েছিলেন পাকিস্তানের প্রধান মন্ত্রিত্ব। তিনি বলেন, জেনারেল জিয়াউর রহমান স্বাধীনতা ঘোষণা দেওয়ায় এদেশের জনগণ যুদ্ধে নেমেছিল।

বর্তমান সরকারের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে খালেদা জিয়া বলেন, আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে উন্নতির নামে চলছে দুর্নীতি, লুটপাট, হত্যা ও গুম। তারা পুলিশ বাহিনী দিয়ে ভালো ভালো লোকদেরকে গ্রেফতার করে গুম ও হত্যা করেছে।

এই মন্তব্যের পরেই বাংলাদেশের রাজনীতিতে প্রবল আলোড়ন ছড়ায়৷ খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মানহানির মামলা দায়ের করা হয়৷