লন্ডন: শ্রীলঙ্কা সফর শেষ করেই ভারতে আসছে ইংল্যান্ড ক্রিকেট দল৷ বিরাট কোহলিদের বিরুদ্ধে চার টেস্টের সিরিজ খেলবে ইংল্যান্ড৷ ভারতের বিরুদ্ধে প্রথম দু’টি টেস্টের যে দল বেছে নিয়েছেন নির্বাচকরা তা না-পসন্দ প্রাক্তন ইংল্যান্ড অধিনায়ক কেভিন পিটারসনের৷

সদ্য অস্ট্রেলিয়ায় টেস্ট সিরিজ জিতে ফিরেছে ভারত৷ শক্তিশালী অজিবিগ্রেডকে হারিয়েছে ভারতের তরুণ তুর্কিরা৷ সেই ভারতের বিরুদ্ধে প্রথম দু’টি টেস্টে জনি বেয়ারস্টো, মার্ক উড ও স্যাম কারেনকে বিশ্রাম দিয়েছে ইংল্যান্ড৷ এই তিন জনের পরিবর্তে দলে নেওয়া হয়েছে বেন স্টোকস, জোফরা আর্চার ও ররি বার্নসকে৷ স্টোকস-আর্চারদের আবার শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে চলতি সিরিজে বিশ্রাম দিয়েছে ইংল্যান্ড৷

তবে ভারতের বিরুদ্ধে প্রথম দু’টি টেস্টের দল নিয়ে টুইটারে ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন প্রাক্তন ইংল্যান্ড অধিনায়ক৷ গলে চলতি টেস্টে শ্রীলঙ্কার বোলিং আক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াই করা বেয়ারস্টোকে বিশ্রাম দেওয়ায় প্রশ্ন তুলেছেন কেপি৷ টুইটারে পিটারসেন লিখেছেন, “Big debate on whether ENG have picked their best team to play India in the 1st Test. Winning IN India is as good a feeling as winning in Aus. It’s disrespectful to ENG fans & also @BCCI to NOT play your best team. Bairstow has to play! Broad/Anderson have to play.”

ভারতের বিরুদ্ধে চার টেস্টের সিরিজ খেলবে ইংল্যান্ড৷ প্রথম দু’টি টেস্ট হবে চেন্নাইয়ের চিপকে৷ প্রথম টেস্ট শুরু ৫ ফেব্রুয়ারি৷ পরের দু’টি টেস্ট ম্যাচ হবে আমদাবাদের বিশ্বের সবচেয়ে বড় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে৷ সিরিজের তৃতীয় টেস্টটি হবে ডে-নাইট৷ পিঙ্ক বল টেস্ট শুরু হবে ২৫ ফেব্রুয়ারি৷

সদ্য অস্ট্রেলিয়া থেকে টেস্ট সিরিজ জিতে ফিরেছে ভারতীয় দল৷ অজিদের বিরুদ্ধে চার টেস্টের সিরিজ ২-১ জিতেছে টিম ইন্ডিয়া৷ অ্যাডিলেডে প্রথম টেস্ট হারলেও দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়ায় ভারত৷ মেলবোর্নে বক্সিং ডে টেস্ট জিতে সিরিজে সমতা ফেরানোর পর সিডনি টেস্ট করে রাহানে অ্যান্ড কোং৷ আর ব্রিসবেনে টেস্টে রোমাঞ্চকর জয়ে সিরিজ পকেট পুরে নেয় ভারত৷ অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে প্রথম টেস্ট খেলে দেশে ফেরা কোহলি ইংল্যান্ড সিরিজে দলে ফিরেছেন৷

ভারতের বিরুদ্ধে প্রথম দু’টি টেস্টে ইংল্যান্ড দল: জো রুট (ক্যাপ্টেন), জোফরা আর্চার, মোয়েন আলি, জেমস অ্যান্ডারসন, ডম বেস, স্টুয়ার্ট ব্রড, ররি বার্নস, জোস বাটলার, জ্যাক ক্রলি, ড্যান লরেন্স, জ্যাক লিচ, ডম সিবলে, বেন স্টোকস, ওলি স্টোন ও ক্রিস ওয়াকস৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।