নয়াদিল্লি: সামনেই শুরু হতে চলেছে মহারাষ্ট্রে বিধানসভা নির্বাচন। সেই উদ্দেশ্যে এখন গোটা মহারাষ্ট্র জুড়ে সাজোসাজো রব। গত কয়েকদিন আগেই এখানে প্রচারে এসেছিলেন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং। নির্বাচনী প্রচারে এসে পাকিস্তানকে একহাত নিযেছিলেন এই মন্ত্রী। রাজনাথের পথ অনুসরণ করে এবার মহারাষ্ট্রে ভোট কুড়োতে আসরে নামলেন উত্তরপ্রদেশের উপমুখ্যমন্ত্রী কেশব প্রসাদ মৌর্য্য। সোমবারের নির্বাচনী প্রচারের এসে কার্যত পাকিস্তানের বিরুদ্ধে সুর চড়াতে দেখা গেল উপমুখ্যমন্ত্রীকে।

সূত্রের খবর, রবিবার মহারাষ্ট্রের থানেতে মীরা ভায়ান্ডা বিধানসভা কেন্দ্রে বিজেপির হয়ে ভোটের প্রচারে যান উত্তরপ্রদেশের উপমুখ্যমন্ত্রী। জানা গিয়েছে, মীরা ভায়ান্ডার একটি সভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি বিজেপিকে কেন ভোট দেওয়া উচিত তাঁর ব্যাখ্যা করেন সাধারণ মানুষের কাছে। মীরা ভায়ান্ডা বিধানসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী নরেন্দ্র মাহাতোর হয়ে প্রচারে গিয়ে এদিন বলেন, পাকিস্তানকে আরও কোণঠাসা করতে আপনার মূল্যবান ভোটটি বিজেপিকে দিন। মহারাষ্ট্রের সাধারণ মানুষ কেন বিজেপি-কে ভোট দেবেন? কারণ হিসেবে তিনি জানিয়েছেন, আসন্ন নির্বাচনে পদ্ম চিহ্নে ভোট পড়লে পাকিস্তানের মাথায় হাত পড়বে। ফলে মহারাষ্ট্রের আসন্ন নির্বাচনে নিজের দলের হয়ে প্রচার করতে গিয়ে এমনটাই বক্তব্য রাখলেন উপমুখ্যমন্ত্রী।

শুধু তাই নয় উত্তরপ্রদেশের এই উপমুখ্যমন্ত্রী আরও জানান, গত ৫ অগস্ট কেন্দ্রের ৩৭০ ধারা বাতিলের মত বড় সিদ্ধান্ত নেওয়া এবং জম্মু ও কাশ্মীর থেকে তা প্রত্যাহারের পর সারাদেশে এই প্রথম বিধানসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে চলেছে। ফলে কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের কাছে পশ্চিমের এই রাজ্য থেকে ভোটের গুরুত্ব অপরিসীম। তিনি মনে করেন, এই বিধানসভা নির্বাচনী ভোটই মহারাষ্ট্রের নাগরিকদের দেশভক্তিকে প্রমান করে দেবে।

পাকিস্তানকে আক্রমণ করার পাশাপাশি বিরোধী দলগুলিকেও কটাক্ষ করতে ছাড়েননি তিনি। পাকিস্তানের পাশাপাশি বিরোধীদেরও একহাত নিয়ে তিনি বলেন, ধনসম্পদের দেবী মা লক্ষী পদ্মফুল ছাড়া অন্য কোথাও বসেন না। আর এই পদ্মফুলই হল ভারতীয় জনগণের জন্য উন্নয়নের প্রতীক।