ফাইল ছবি

তিরুঅনন্তপুরম: এনপিআর নিয়ে এবার বড়সড় পদক্ষেপ নেওয়ার পথে কেরলের বাম সরকার। কোনও সরকারি কর্মী এপিআর নিয়ে কার্যকরী ভূমিকা নিলে তাঁর বিরুদ্ধে ‘ডিসিপ্লিনারি অ্যাকশন’ নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে পিনারাই বিজয়নের সরকার। ইতিমধ্যেই কেরলের সরকারি কর্মীদের এই মর্মে নির্দেশিকা পাঠিয়েছে রাজ্য সরকার।

এবার এনপিআর নিয়েও কড়া পদক্ষেপের পথে বাম শাসিত কেরল। আগেই দেশের মধ্যে প্রথম রাজ্য হিসেবে নাগরিকত্ব আইন নিয়ে বিধানসভায় প্রস্তাব পাশ করিয়েছে কেরল সরকার। একইসঙ্গে সুপ্রিম কোর্টেও সিএএ-কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে মামলা করেছে কেরল সরকার। এবার এনপিআর নিয়েও কড়া পিনারাই বিজয়ন।

আগেই এনপিআর-এর যাবতীয় কাজ বন্ধ ছিল কেরলে। এবার সরকারি কর্মীদেরই পাঠানো হল নির্দেশিকা। নির্দেশিকায় কেরল সরকার জানিয়েছে, কোনও রাজ্য সরকারি কর্মী যদি এনপিআর এর প্রক্রিয়া নিয়ে কার্যকরী ভূমিকা নেন, তাহলে তাঁর বিরুদ্ধে ‘ডিসিপ্লিনারি অ্যাকশন’ নেওয়া হবে।

কেরলে যে এনপিআর লাগু করা হবে না, তা এবার কেন্দ্রের সেনসাস রেজিস্টার জেনারেলকেও জানাতে চলেছে পিনারাই বিজয়নের সরকার। এতদিন যে পদ্ধতিতে আদমসুমারী হয়ে এসেছে সেই পদ্ধতিতেই আদমসুমারী করার দাবি কেরলের।

প্রথম থেকেই সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন ও এনআরসি নিয়ে কেন্দ্র-বিরোধিতায় সরব কেরল। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাশাপাশি সিএএ ও এনআরসি বাতিলের দাবি জানিয়েছেন কেরলের মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন। কেরলে কেন্দ্রের ওই দুই আইন কোনওভাবেই কার্যকর করা হবে না বলেও সাফ জানান বিজয়ন।

একইভাবে এনপিআর নিয়েও কেন্দ্র-বিরোধিতায় প্রথম সারিতেই কেরল। কয়েকদিন আগেই একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমে এনপিআর প্রসঙ্গে ব্যাখ্যা দেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। একইসঙ্গে এনপিআর নিয়ে পিনারাই বিজয়ন ও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আপত্তি নিয়েও মুখ খোলেন অমিত শাহ।

এনপিআর নিয়ে পশ্চিমবঙ্গ ও কেরলের মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলবেন বলেও জানান কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। আলোচনার মাধ্যমেই সমস্যা সমাধানের ইঙ্গিত দেন শাহ। একইসঙ্গে এনপিআর নিয়ে কাজ শুরু করার জন্যও কেরলের মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন ও পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আবেদন জানান অমিত শাহ।

আর এবার এনপিআর নিয়ে পিনারাই বিজয়নের এই কড়া মনোভাবে অস্বস্তি আরও বাড়ল কেন্দ্রীয় সরকারের।