তিরুবনন্তপুরম: কেরলের রাজ্যপালআরিফ মহম্মদ খান সম্প্রতি স্বাক্ষর করেছেন নতুন অর্ডিন্যান্স ‘ডিজাস্টার অ্যান্ড পাবলিক এমার্জেন্সি স্পেশাল প্রভিশনস অ্যাক্ট’-এ। রাজ্যের অর্থমন্ত্রী থমাস আইজ্যাক ‌ এমনটাই জানিয়েছেন। একটি সর্বভারতীয় সংবাদ মাধ্যমে এই খবর প্রকাশিত হয়েছে।

প্রসঙ্গত,কেরলের পিনারাই বিজয়ন সরকার আগেই সিদ্ধান্ত নিয়েছিল, সাময়িক ব্যবস্থা হিসেবে আগামী পাঁচ মাস কর্মীদের বেতন থেকে ছয়দিনের বেতন কাটা হবে। করোনাভাইরাসের সংকটের কারণে যে আর্থিক সমস্যা দেখা গিয়েছে, নগদের উপর যেভাবে চাপ পড়েছে তার পরিপ্রেক্ষিতে ব্যবস্থা নিতেই এমন পদক্ষেপ বলে জানানো হয়েছিল।

এদিকে আবার সরকার বিরোধী কর্মী ইউনিয়ন সরকারের এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে কেরল হাইকোর্টের আবেদন জানায় এবং স্থগিতাদেশ পায়। তার ফলে ‌ বিজয়নের‌ সরকার নতুন অর্ডিন্যান্স আনে এবং তা পাঠানো হয়েছিল রাজ্যপালের কাছে।

সেই প্রসঙ্গে অর্থমন্ত্রী আইজ্যাক বলেছেন, “হ্যাঁ এটি স্বাক্ষর হয়েছে এবং এখন সব সরকারি কর্মীর এপ্রিল মাসের বেতন পাবে যা দেওয়া শুরু হবে ৪মে থেকে ।” তিনি আরও জানান, এটা খুব দুঃখজনক যে এই ইস্যু ঘিরে অনেক জল ঘোলা হয়েছে। এটাকে কোনও‌ রকম‌ জয় হিসেবে দেখা হচ্ছে না বরং কর্মীদের প্রতি সহানুভূতিশীল‌ তাদের সরকার। এমন টা ঘটেছিল কারণ তারা কি করছেন সেটা দেখতে কিছু লোক ব্যর্থ হওয়ায়। তিনি দাবি করেছেন, তারা কখনোই কর্মীদের বিরুদ্ধে নন।

কলকাতার 'গলি বয়'-এর বিশ্ব জয়ের গল্প