তিরুবনন্তপুরম: সাক্ষরতা থেকে শুরু করে পরিষ্কার পরিছন্নতা। সব সময় দেশের মধ্যে সাফল্যের শীর্ষে অবস্থান করে আসছে পিনারাই বিজয়নের রাজ্য। বাম শাসিত রাজ্য হলেও কেন্দ্র তথা অপরুপ সৌন্দর্যে ভরা দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলের এই রাজ্যটি গোটা দেশের কাছে মডেল স্বরুপ।

তবে গত চারমাস ধরে অব্যাহত করোনা মহামারীর জেরে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের মতো ভারতের এই রাজ্যটিতেও মারণ ব্যাধির কুদৃষ্টি গ্রাস। যার ফলে ভারতের মধ্যে কেরলই হল প্রথম রাজ্য যেখানে সর্ব প্রথম করোনা সংক্রামিত রোগীর খোঁজ পাওয়া যায়।

এরপর দিন যত এগিয়েছে ততই অন্যান্য রাজ্যের মতো কেরলেও ক্রমশ লম্বা হয়েছে করোনায় মৃত এবং আক্রান্তের তালিকা। দেশ তথা নিজ রাজ্যের এমন সংকটময় পরিস্থিতিতে প্রথম থেকেই করোনা মোকাবিলায় একাধিক উল্লেখযোগ্য পদক্ষেপ গ্রহনে গোটা দেশবাসীর কাছে উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত বামেদের এই রাজ্য।

তবে এতকিছুর পড়েও কিছুতেই লাগাম টানা যাচ্ছে না করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে। অন্যদিকে দিন যতই যাচ্ছে শিথিল হচ্ছে লকডাউন। আর এই অবস্থায় গোটা দেশেই হুহু করে বাড়ছে আক্রান্ত এবং মৃতের সংখ্যা। আর দেশ ও দশের এমন নিদারুণ পরিস্থিতিতে জনগণের সুরক্ষার কথা মাথায় রেখে কেরলবাসীর স্বার্থে করোনা মোকাবিলায় ১ বছরের জন্য বাধ্যতামূলক করা হল সরকারী গাইডলাইন।

করোনা রুখতে এমন কড়া পদক্ষেপ গ্রহন কেরল সরকারের। সংক্রমণ রোধে নয়া এই নির্দেশগুলি আগামী ১ বছর অথবা পরবর্তী নির্দেশিকা জারি না হওয়া পর্যন্ত কার্যকর থাকবে বলে জানা গিয়েছে।

সরকারী ওই নির্দেশিকা গুলি হল: ১. নতুন নির্দেশিকা অনুযায়ী জনসমক্ষে, কর্মস্থলে, যানবাহনের মধ্যে এবং মানুষের জমায়েত হয় এমন জায়গায় মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক৷

২.বনধ, ধরনা, প্রতিবাদ মিছিল এবং বিক্ষোভের ক্ষেত্রে সরকারের ক্ষেত্রে আগাম অনুমোদন নিতে হবে৷ অনুমোদন পেলে ১০ জনের বেশি অংশ নিতে পারবেন না৷

৩.রাস্তা, ফুটপাথের মতো প্রকাশ্য স্থানে থুতু ফেলা যাবে না৷ প্রকাশ্য স্থানে এবং কোনও অনুষ্ঠানে সবসময় ৬ ফুটের সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে৷

৪.যে কোনও দোকান বা ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানে একসঙ্গে ২৫ জনের বেশি থাকতে পারবেন না৷ দোকানে গ্রাহকদের প্রবেশের আগে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা বাধ্যতামূলক ভাবে রাখতে হবে৷

৫.বিয়ের অনুষ্ঠানে ৫০ জনের বেশি জড়ো হতে পারবে না৷ প্রত্যেককে মাস্ক পরতে হবে এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে৷ শ্রাদ্ধানুষ্ঠানের ক্ষেত্রে ২০ জনের বেশি জড়ো হওয়া যাবে না৷

৬. এই নির্দেশগুলি আগামী ১ বছর অথবা পরবর্তী নির্দেশিকা জারি না হওয়া পর্যন্ত কার্যকর থাকবে৷

৭.করোনা সংক্রমণ রুখতে অন্য রাজ্য থেকে কোনও গণপরিবহনের যানবাহন আসবে না এবং কেরল থেকেও আপাতত কোনও যানবাহন পার্শ্ববর্তী রাজ্যগুলিতে যাবে না।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ