তিরুঅনন্তপুরম: গ্রামের মধ্যে ব্যাপক হারে ছড়াচ্ছে করোনা। তাই গ্রামের মধ্যে মোতায়েন করা হল ২৫ জন কমান্ডোকে। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এটিই সম্ভবত একটি গ্রামে সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ। যেখানে মারাত্মক হারে ছড়িয়েছে করোনা।

বুধবার কয়েকটি ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, পুঁথুরা গ্রামে বিভিন্ন ওয়ার্ডের মধ্যে রয়েছে কমান্ডো, অ্যাম্বুলেন্স এবং পুলিশ গাড়ি। সঙ্গে মাইক থেকে অ্যানাউন্সমেন্ট করে জানানো হয়, “লোকেদের যদি অহেতুক ঘোরাঘুরি করতে দেখা যায় তবে তাদের তুলে অ্যাম্বুলেন্সে রাখা হবে এবং কমান্ডোদের সাহায্যে অন্য জায়গায় নিয়ে যাওয়া হবে।

যখন কোনও ব্যক্তি ৬ জনের বেশি লোককে সংক্রামিত করে তখন তাঁকে বলা হয় সুপার-স্প্রেডার। বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, ওই গ্রামে একাধিক সুপার স্প্রেডারকে চিহ্নিত করা হয়েছে।

যারা প্রথম করোনা সংক্রামিত হিসেবে ধরা পড়েছিলেন, তাঁদের মধ্যে একজন ছিলেন মাছ ব্যবসায়ী। তিনি কুমারচাদা নামে একটি স্থানীয় বাজারে বিক্রি করতেন। ওই বাজারে অনেকের করোনা সংক্রমণ পাওয়া গিয়েছে। জেলার কোভিড -১৯ কনটেইনমেন্টের দায়িত্বে থাকা এক কর্মকর্তা বলেছেন, এই অঞ্চলের বেশিরভাগ ওয়ার্ডেই ছড়িয়েছে সংক্রমণ।

ভয়াবহ রিপোর্ট জানাচ্ছে, গত ৫ দিনে ওই গ্রামে ৬০০ করোনা পরীক্ষা হওয়ায় প্রায় ১১৯ জনের শরীরে করোনা সংক্রমণ ধরা পড়েছে। করোনা পজিটিভ পাওয়া এক মৎসজীবী কাদের সংস্পর্শে এসেছিল তা খুঁজতে গিয়ে প্রাথমিক ভাবে ১২০ জনের সন্ধান মেলে। পরে আরও ১৫০ জনকে চিহ্নিত করা হয়।

অন্যদিকে ওই গ্রামে অনেক পরিবার মাছ ধরার উপর নির্ভরশীল। তাঁদের কাউকে এখনই তামিলনাড়ু যেতে বা সেখান থেকে নৌকায় করে ফিরে আসতে দেওয়া হবে না। উপকূলে নরজরদারি করার জন্য উপকূলরক্ষী, উপকূলীয় সুরক্ষা এবং মেরিন এনফোর্সমেন্ট ইতিমধ্যে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

তিরুঅনন্তপুরমের নভজোত খোসা জানিয়েছেন, পরবর্তী বিজ্ঞপ্তি না হওয়া পর্যন্ত তিরুঅনন্তপুরমেকোনও মাছ ধরার অনুমতি দেওয়া হবে না।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ