নয়াদিল্লি : সম্প্রতি জিভে অস্ত্রোপচার করিয়েছেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। সেই নিয়েও মুখ্যমন্ত্রীকে খোঁচা দিলেন মনোহর পারিকর। তিনি বলেন প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে মুখ খোলার জন্যই নাকি জিভে অস্ত্রোপচার করাতে হয়েছে আপ প্রধানকে।

জিভে অস্ত্রোপচার নিয়ে গোয়ায় বিধানসভা নির্বাচনের এক সভায় কেজরিওয়ালকে খোঁচা দিলেন মনোহর পারিকর। তিনি বলেন “প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং আমার বিরুদ্ধে বলার পর থেকেই কেজরীওয়ালের জিভ লম্বা হয়ে গেছে। তাই এই অস্ত্রোপচার জরুরি ছিল। উনি দিল্লিতে প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে আর গোয়ায় আমার বিরুদ্ধে অনেক কিছু বলেছেন”। তবে এরপরেই ডিফেন্সিভ মুডে চলে যান তিনি। যাতে কোন জলঘোলা না হয়, সে কারণে চটজলদি কেজরির আরোগ্য কামনাও করে নেন। সভায় অন্যান্য আপ নেতাদের সমালোচনা করে তিনি বলেন,‘দিল্লিতে চিকেনগুনিয়া অথবা ডেঙ্গুতে প্রকোপ বেড়ে চলেছে। এদিকে আপ নেতারা দিল্লি থেকে পালাচ্ছে।’ আপ নেতাদের বিদেশ ভ্রমণের টাকা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন পারিকর। পাশাপাশি মহিলাকে হেনস্থার অভিযোগে গ্রেফতার হওয়া আপ বিধায়ক সন্দীপ কুমারের উদাহরণ দিয়ে অন্যান্য বিধায়কদেরও নিন্দা করেন তিনি। ‌‌‌

 

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।