নয়াদিল্লি: কানহাইয়া কুমারের বিরুদ্ধে পুরোন দেশদ্রোহিতার মামলার বিচার শুরুর অনুমতি দিল কেজরিয়াল সরকার। ২০১৬ সালের ৯ ফেব্রুয়ারি জওহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয়ে কানহাইয়ার বিরুদ্ধে দেশবিরোধী স্লোগান দেওয়ার অভিযোগ ওঠে। এই ঘটনায় কানহাইয়া কুমার, উমর খালিদ এবং অনির্বাণ ভট্টাচার্যদের বিরুদ্ধে চার্জশিট পেশ করে পুলিশ।

দিল্লির জেএনইউয়ে ২০১৬ সালে দেশবিরোধী স্লোগান দেওয়ার অভিযোগ ওঠে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সংসদের তৎকালীন সম্পাদক কানহাইয়া কুমারের বিরুদ্ধে। ক্যাম্পাসের মধ্যে চলা ওই অনুষ্ঠানে কানহাইয়া ছাড়াও আরও বেশ ককেকজন ছাত্র নেতা দেশবিরোধী স্লোগান দিয়েছিলেন বলে অভিযোগ তোলে দিল্লি পুলিশ। সেই ঘটনার ৩ বছর পর ২০১৯ সালের জানুয়ারিতে চার্জশিট পেশ করে পুলিশ।

চার্জশিটে কানহাইয়া ছাড়াও অন্যদের মধ্যে জেএনইউ-র প্রাক্তন পড়ুয়া উমর খালিদ এবং অনির্বাণ ভট্টাচার্যদের নাম আছে। তাঁদের বিরুদ্ধে অনুষ্ঠানে নেতৃত্ব দেওয়া এবং দেশবিরোধী স্লোগানকে সমর্থনের অভিযোগ আনা হয়েছে।

সম্প্রতি কানহাইয়াদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহিতার মামলার বিচার শুরুর প্রক্রিয়ায় অনুমতি দিয়েছে অরবিন্দ কেজরিওয়ালের সরকার। এমনকী আদালতও এব্যাপারে যথোপযুক্ত পদক্ষেপ করতে নির্দেশ দিয়েছে দিল্লি পুলিশকে। যদিও পুলিশের তোলা সব অভিযোগ শুরু থেকেই অস্বীকার করেছেন কানহাইয়া কুমার ও তাঁর সহযোগিরা। পুলিশ উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে তাঁদের মিথ্যা মামলায় ফাঁসানোর চেষ্টা করছে বলেও অভিযোগ কানহাইয়া কুমারদের।

যদিও এবার অনেক বেশি সাবধানী দিল্লি পুলিশ। তথ্য-প্রমাণ জোগাড়ে কোনওরকম ফাঁক রাখতে চাইছেন না পুলিশের কর্তারা। কানহাইয়াদের বিরুদ্ধে তোলা সব অভিযোগের ‘প্রমাণ’ হাতে নিয়েই আদালতে সওয়াল করতে চাইবে পুলিশ।

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।