নয়াদিল্লিঃ রাজধানীতে ২৪ ঘন্টাই খোলা থাকবে অত্যাবশ্যকীয় সামগ্রীর দোকান। বৃহস্পতিবার এমনই ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। এদিন দিল্লির পরিস্থিতি নিয়ে কথা বলতে মুখ্যমন্ত্রী বৈঠক করেন উপ-রাজ্যপাল অনিল বইজলের সঙ্গে। পরে প্রশাসনিক আধিকারিকদের সঙ্গে দীর্ঘ বৈঠক করেন। এই বৈঠকে সাধারণ মানুষের একাধিক সমস্যার কথা উঠে আসে।

বৈঠক শেষে মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল বলেন, দিল্লিতে দুধ, সবজি,মাছ মাংস সহ অন্যান্য অত্যাবশ্যকীয় পণ্যের দোকান খোলা থাকবে। আর তা ২৪ ঘণ্টা খোলা রাখার ব্যাপারে পদক্ষেপ নিতে আবেদন জানিয়েছেন সে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী। এই ব্যাপারে উপরাজ্যপালকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করতেও আবেদন জানিয়েছেন কেজরিওয়াল। জানা গিয়েছে, অত্যাবশ্যকীয় পণ্য সামগ্রী দোকান খোলা রাখার ব্যাপারে পদক্ষেপ করবেন বলে মুখ্যমন্ত্রী কেজরিওয়ালকে সবরকম আশ্বাস দিয়েছেন দিল্লির উপ-রাজ্যপাল।

দিল্লিতে এখনও পর্যন্ত কোন আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৩৬। মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল জানিয়েছেন ৩৬ জনের মধ্যে ২৬ জন বিদেশ থেকে এসেছিলেন। বাকি ১০ জনের মধ্যে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ে। যদিও এখনও পর্যন্ত দিল্লিতে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল।

মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল বলেন, দিল্লীর সমস্ত আধিকারিকদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে যে, তাঁরা যেন সবজি, মুদি, রেশন আর ওষুধের দোকান খোলানো আর সেখানে অত্যাবশ্যকীয় পণ্য যাতে পাওয়া যায় তা সুনিশ্চিত করতে হবে। এরই পাশাপাশি দিল্লি পুলিশকেও আবেদন করে মুখ্যমন্ত্রী কেজরিওয়াল বলেছেন, তাঁরা যেন প্রয়োজনীয় জিনিষ সরবরাহ করা মানুষদের না আটকান। সবজি আর দুধওয়ালাদের কোন পাস ছাড়াই যেন যেতে দেওয়া হয়।

দেশজুড়ে ২১ দিনের লকডাউনের ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। যদিও অত্যাবশ্যকীয় সমস্ত পণ্যকে বাইরে রাখা রাখা হয়েছে। কিন্তু অনেক ক্ষেত্রেই জরুরি পরিষেবা পেতে সমস্যা হচ্ছে সাধারণ মানুষের। মিলছে না অত্যাবশ্যকীয় পণ্য। ক্ষোভ বাড়ছে সাধারণ মানুষের। সেদিকেই তাকিয়ে এই সিদ্ধান্ত মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালের।