ফাইল ছবি৷

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: দুপুর ২টো নাগাদ বাগডোগরা বিমানবন্দরে নেমে, সেখান থেকে হেলিকপ্টারে ময়নাগুড়ির সভায় আসবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷ ১০০ মিটারের মধ্যে তিনটি হেলিপ্যাড রয়েছে৷ ময়নাগুড়ির চূড়াভান্ডারে দুটি মঞ্চ প্রস্তুত করা হয়েছে৷ তার একটিতে বুলেটপ্রুফ পোডিয়ামে ভাষণ দেবেন মোদী৷ সিসিটিভিতে মুড়ে ফেলা হয়েছে মঞ্চ ও তার চারপাশ৷

ঠাকুরনগরের বিশৃঙ্খলাকে মাথায় রেখেই এবার আরও কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে৷ কাঠের সঙ্গে লোহার বিম ব্যবহার করে ব্লক তৈরি করা হয়েছে৷ ব্যারিকেড এবং এলইডি বালবে এলাকা ঘিরে ফেলা হয়েছে৷ সেই সঙ্গে নিরাপত্তার দায়িত্বে বিশাল পুলিশবাহিনী, স্পেশাল প্রোটেকশন গ্রুপ রয়েছে৷

দুটি মঞ্চতেই রয়েছে পুলিশি প্রহরা৷ মোদীর এই সবাকে ঘিরে যাতে কোনওরকমের সমস্যা না হয় সেইদিকে কড়া নজর রাখা হলেও, প্রকৃতি সেখানে কপালে ভাঁজ ফেলছে৷ কালো মেঘে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে এই সভাকে ঘিরে৷ তবে সে সবের মধ্যেই শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি খতিয়ে দেখতে ব্যস্ত সকলেই৷ ইতিমধ্যেই সেখানে জনসমাবেশ শুরু হয়েছে বলে সূত্রের খবর৷

এরইমধ্যে প্রশাসনিক সভায় সার্কিট বেঞ্চের উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী৷ আর এই নিয়ে নতুন করে কেন্দ্র-রাজ্য তরজা শুরু হয়েছে৷ রাজ্য সরকারকে অন্ধকারে রেখে এই সিদ্ধান্ত বলে যেখানে অভিযোগ উঠছে, সেখানেই বজেপির রাজ্য সবাপতি দিলীপ ঘোষের বক্তব্য, সার্কিট বেঞ্চ নিয়ে রাজ্য সরকারের কোনও অধিকার নেই তাই এই বিষয়ে তাদের জানানোরও প্রশ্ন ওঠে না৷