গরমে টেঁকা যাচ্ছে না৷ প্রখর দারুণ অতি দীর্ঘ দগ্ধ দিনের জ্বালাপোড়া সমান ভাবে বহাল ঘরেও৷ শুধু রাস্তায় বেরিয়ে নয়, ঘরেও আরাম নেই ফ্যানের তলায়৷ কিন্তু সবার ঘরে তো এসি নেই, আবার এসি থাকলেও ইলেকট্রিক বিলের ঠ্যালায় ছ্যাঁকা খেতে হয় মাসের শেষে৷ তাই আজ রইল প্রাকৃতিক উপায়ে ঘর ঠাণ্ডা রাখার কিছু কৌশলের হদিশ৷

রোদ আটকে ভারি পর্দা টানান

দুপুরের রোদ ঘরে ঢুকতে দেবেন না৷ দরকার পড়লে জানলা অনেক আগেই বন্ধ করে দিন৷ দুপুরে টানান ভারি পর্দা৷ জানলার পর্দা টেনে রাখুন৷ তবে বিকেল হতেই ঠাণ্ডা হাওয়া ঘরে ঢোকার জন্য পর্দা সরিয়ে জানলা খুলে দিন৷

পোর্টেবল ফ্যান নিয়ে যান জানলার কাছে

পোর্টেবল ফ্যান রয়েছে বাড়িতে? সদ্ব্যবহার করুন৷ প্রতিদিন দুপুরে ভ্যাপসা গরম থেকে বাঁচতে আপনার টেবিল বা পোর্টেবল ফ্যানটি জানালার কাছে নিয়ে চালিয়ে দিন। এটি বাইরের ঠাণ্ডা হাওয়া ভিতরে নিয়ে আসবে এবং ঘরের অসহনীয় গরম দূর হবে।

বরফ রেখে ফ্যান চালান

ইনস্ট্যান্ট এসির হাওয়া খেতে চান? টেবিল ফ্যানের সামনে গামলা ভর্তি বরফ রেখে ফ্যান চালিয়ে দিন৷ নয়তো একটি জলের বোতলে বরফ জমিয়ে ফ্যানের সামনে রাখুন। যখনই ফ্যান চালাবেন, বরফের ঠাণ্ডা হাওয়া ঘরকে সীতল করে তুলবে৷

বিনা প্রয়োজনে ইলেকট্রিক জিনিস অন করবেন না

অপ্রয়োজনীয় ইলেকট্রিক জিনিস চালিয়ে রাখলে ঘর অতিরিক্ত গরম হয়ে ওঠে৷ জানতেন সেটা? একদমই তাই৷ বিনা কারণে কম্পিউটার, টিভি, টিউব, ফ্যান চালিয়ে রাখলে ঘর গরম হয়ে ওঠার প্রবণতা থাকে৷ তাই বিনা প্রয়োজনে এসব জিনিস বন্ধ করে রাখবেন। এতে ইলেকট্রিক বিলও কমবে, ঘরের ভিতরে গরমও কম লাগবে৷

প্রয়োজন ছাড়া গ্যাস জ্বালাবেন না

রান্নার সময় ছাড়া গ্যাসের ওভেন বন্ধ করে রাখুন৷ এতে ঘরের তাপমাত্রা বাড়ে৷ গ্যাসও বেশি খরচা হয়৷

জানলায় লাগান হিট প্রটেক্টিং উইন্ডো ফিল্ম

জানলার কাঁচের মধ্যে দিয়ে তাপ শোষিত হয় অনেকটা৷ ফলে ঘর গরম হয়ে ওঠে৷ তাই যেসব জানলায় সরাসরি সূর্যের আলো পড়ে, সেখানে হিট প্রটেক্টিং উইন্ডো ফিল্ম লাগান। এতে তাপ শোষণ ৬০% পর্যন্ত কমে যায়৷ ঘর ঠাণ্ডা থাকে৷ তবে আরেকটা কাজ করতে পারেন, জানলার বাইরের দিকে সাদা রঙ করে নিতে পারেন৷ এর ফলে সূর্যের আলো প্রতিফলিত হয়ে যাবে এবং কম তাপ শোষণ করবে।

গাছ লাগান বাড়ির চারপাশে

বাড়ির পূর্ব ও পশ্চিম পাশে বেশি করে গাছ লাগান। এটি হচ্ছে দীর্ঘমেয়াদি ইনভেস্টমেন্ট। বাড়ির আশেপাশে গাছ থাকলে সরাসরি সূর্যের আলো পড়ে না৷ ফলে ঘরের পরিবেশ ঠাণ্ডা থাকে।