ফাইল ছবি

কলকাতা: ফের একবার রাজ্যের আইন শৃঙ্খলা নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে চিঠি পাঠালেন বিদ্বজ্জনেরা। রাজ্যের বেশ কয়েকটি ঘটনায় দৃষ্টি আকর্ষণ করতে সরাসরি মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি দিলেন তাঁরা। বিদ্বজ্জনদের মধ্যে রয়েছেন অপর্ণা সেন, কৌশিক সেন, পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়রা।

মূলত কল্যাণীতে অনশনরত শিক্ষকদের উপর লাঠিচার্জ ও গ্রেফতার করার ঘটনাতেই ক্ষুব্ধ বিশিষ্ট মহল। তাঁরা লিখেছেন, ”আমরা উদ্বেগের সঙ্গে লক্ষ্য করছি যে, প্রশাসন রাজ্যে শিক্ষকদের যে কোনও রকম গণতান্ত্রিক ও শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের মোকাবেলা করতে কোনও রকম আলাপ আলোচনার পথে না গিয়ে পুলিশের সাহায্যে অগণতান্ত্রিক উপায়ে আন্দোলন দমিয়ে দেবার পদ্ধতি গ্রহণ করেছে।”

গত ১৭ তারিখে কল্যাণীতে অনশনরত শিক্ষকদের উপর লাঠিচার্জ ও গ্রেফতার করা হয়েছে। বুধবারও অগস্ট সুবোধ মল্লিক স্কোয়ারে কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের আংশিক সময়ের শিক্ষকদের অনশন মঞ্চ তৈরি করতে পুলিশের বাধা দান ও কয়েকজনকে তুলে নিয়ে যাওয়ার ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ।

পুলিশি আক্রমণের কথা উল্লেখ করে তীব্র নিন্দা করেছেন বিদ্বজ্জনেরা। এই পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে মুখ্যমন্ত্রীকে অনুরোধ জানিয়েছেন তাঁরা।

চিঠি তে উল্লেখ করা হয়েছে, গত ১৫ অগস্ট ২০১৯ অ্যাকাডেমি চত্বরে ‘এ্যাকটর্স ইউনাইট’ এর উদ্যোগে সাম্প্রদায়িকতা ও মৌলবাদ বিরোধী জমায়েতে তিনটি নাটিকা অভিনীত হয়। ‘এ্যাকটর্স ইউনাইট’ এর সভ্য শুভঙ্কর দাশশর্মা অভিনয় শেষে বাড়ি ফেরার পথে দমদমে কিছু অচেনা ছেলের হাতে প্রহৃত হন। তাঁর চোখে কোনও ওষুধ লাগিয়ে দেওয়া হয় ,যাতে তার দেখতে অসুবিধা হয়। কেন তাঁকে মারা হচ্ছে, সে বিষয়ে কিছু বলা হয় না।

দেশের অন্যান্য গণপিটুনির ঘটনার মত এটাও নিন্দনীয় বলেই মনে করছেন তাঁরা। এদিনের চিঠি লিখেছেন, অপর্ণা সেন, সোহাগ সেন, কৌশিক সেন, রেশমী সেন, ঋদ্ধি সেন, পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়, বোলান গঙ্গোপাধ্যায়, পিয়া চক্রবর্তী, রূপসা দাশগুপ্ত, মুদার পাথেরিয়া।

এর আগে ভাটপাড়ার পরিস্থিতি মোকাবিলায় মমতাকে চিঠি দিয়েছিলেন বিশিষ্টরা।