মুম্বই: করোনা সংক্রমনের জেরে সারা বিশ্ব ত্রস্ত হয়ে রয়েছে। ধীরে ধীরে ভ্যাকসিন আবিষ্কার হলেও এই মারুন ভাইরাসের থেকে কবে পুরোপুরি নিস্তার মিলবে তা এখনো ধোঁয়াশায় রয়ে গিয়েছে। তাই এখন এর থেকে বাঁচতে একমাত্র উপায় যতটা সম্ভব সাবধানতা বজায় রাখা। অভিনেত্রী ক্যাটরিনা কাইফও একই কাজ করলেন। সাবধানতা বজায় রাখতে শুটিং শুরুর আগে করোনা পরীক্ষা করালেন অভিনেত্রী।

কিছুদিন আগেই মালদ্বীপ গিয়েছিলেন ক্যাটরিনা। একটি বিজ্ঞাপনের ভিডিও শুটিং করতে গিয়েছিলেন অভিনেত্রী। আর তাই দেশে ফিরে ছবির শুটিংয়ে যোগ দেওয়ার আগে নিজের শারীরিক অবস্থা যাচাই করে নিলেন অভিনেত্রী। পরীক্ষা করালেন করোনা। সেই ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছেন ক্যাটরিনা।

ভিডিও দেখা যাচ্ছে পিপিই কিট পরিহিত এক স্বাস্থ্যকর্মী ক্যাটরিনার সোয়াব স্যাম্পল নিচ্ছেন। ভিডিওটি শেয়ার করে ক্যাটরিনা লিখেছেন, “এটা করতেই হবে। শুটিংয়ের জন্য পরীক্ষা করাচ্ছি। সাবধানতা সবার আগে।” সাদা রঙের পোশাকে সবসময়ের মতোই লাগছিল অভিনেত্রীকে। তবে তার লালা রসের নমুনা যখন নেয়া হচ্ছে নাক থেকে, তখন তিনি বেশ ভয় পেয়ে গিয়েছিলেন।

মালদ্বীপ বেড়াতে যাওয়ার বেশ কিছু ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছেন ক্যাটরিনা। নীল আকাশ ও দিগন্ত বিস্তৃত সমুদ্রের সামনে রঙিন পোশাকে ক্যাটরিনাকে দেখে মুগ্ধ হয়েছেন তার অনুরাগীরা। কিছুদিন আগে একটি পোস্ট এর মাধ্যমে ক্যাটরিনা জানিয়েছিলেন লকডাউন এর পরে আবার শুটিংয়ে ফিরতে পেরে তিনি খুব আনন্দে রয়েছেন। আর তারপরে মালদ্বীপে বেরিয়ে এসে তিনি আরো খুশি।

ক্যাটরিনার শেষ মুক্তিপ্রাপ্ত ছবি হল ভারত। এছাড়া আগামীতে তাকে অক্ষয় কুমারের বিপরীতে সূর্যবংশী ছবিতে দেখা যাবে। ফোনভূত ছবিতেও এই মুহূর্তে অভিনয় করছেন ক্যাটরিনা। তার বিপরীতে দেখা যাবে সিদ্ধান্ত ত্রিবেদী এবং ঈশান খাট্টারকে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।