মুম্বই: একটা সময় কোনও সোশ্যাল মিডিয়ায় ছিলেন না ক্যাটরিনা কাইফ। অনেক পরে ২০১৭ সালে ইনস্টাগ্রামে জয়েন করেন অভিনেত্রী। মুহুর্তের মধ্যে তাঁর ফলোয়ার সংখ্যা হুহু করে বেড়ে যায়। সোশ্যাল মিডিয়া কীভাবে হ্যান্ডেল করতে হয় তা সম্পূর্ণ শিখেই ইন্সটাগ্রাম খুলেছিলেন ক্যাটরিনা। আর তাঁকে শিখিয়ে ছিলেন তাঁর প্রাক্তন প্রেমিক রণবীর কাপুর। ক্যাটরিনা এক সংবাদমাধ্যমের কাছে এমনই জানিয়েছিলেন।

কিন্তু বিষয় হলো রণবীর কাপুর নিজেই কোনঝ সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্মে নেই। তাহলে তিনি ক্যাটরিনাকে শেখালেন কিভাবে! আরবাজ খানের চ্যাট শো পিঞ্চ-এ ক্যাটরিনা জানিয়েছিলেন প্রাক্তন প্রেমিক রণবীর তাঁকে ইনস্টাগ্রাম ব্যবহার করা শিখিয়েছিলেন। বহু তারকাদের একটি অতিরিক্ত ফেক অ্যাকাউন্ট থাকে যার মাধ্যমে তাঁরা অন্যদের স্টক করেন।

আরবাজ জিজ্ঞাসা করেছিলেন ক্যাটরিনারও এমন কোন ফেক অ্যাকাউন্ট আছে কিনা। ক্যাটরিনা জানিয়েছিলেন তাঁর কোনও ফেক অ্যাকাউন্ট নেই। কিন্তু রণবীর কাপুরের নিজের কোনো বৈধ অ্যাকাউন্ট না থাকলেও একটি ফেক অ্যাকাউন্ট রয়েছে। আর সেই অ‍্যাকাউন্টের মাধ্যমে তিনি ক্যাটরিনাকে ইনস্টাগ্রাম হ্যান্ডেল করা শিখিয়েছিলেন। সাক্ষাৎকারে জানিয়েছিলেন ক্যাটরিনা। তিনি বলেছিলেন, “আমি জানি রনবীরের একটা ফেক ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট আছে। ওই তো আমাকে ইনস্টাগ্রাম ব্যবহার করা শিখিয়েছিল।”

দীর্ঘ ৭ বছর সম্পর্কে ছিলেন রণবীর কাপুর এবং ক্যাটরিনা। ২০১৬ সালে সেই সম্পর্কে ইতি টানেন তারা। শোনা যায় ক্যাটরিনা সেই বিচ্ছেদ থেকে খুবই ভেঙে পড়েছিলেন। যদিও এই বিচ্ছেদকে শিক্ষণীয় বলে মনে করেন অভিনেত্রী। ব্রেকআপ সম্পর্কে ক্যাটরিনা বলেছিলেন, “আমার কাছে এটা আশীর্বাদের মতো কারণ আমি নিজের অন্যান্য দিকগুলি বুঝতে শিখেছি। নিজের গতানুগতিক দিকগুলি ছাড়াও অন্য আরো যে ভাবনা চিন্তা রয়েছে সেগুলোকে খুঁজে পেয়েছি।”

প্রসঙ্গত রণবীর ও ক্যাটরিনাকে শেষ একসঙ্গে জগ্গা জাসুস ছবিতে দেখা গিয়েছিল। বর্তমানে রণবীর কাপুরের সঙ্গে সম্পর্কের রয়েছেন অভিনেত্রী আলিয়া ভাট। দুই পরিবারের সম্পর্কে নিয়ে কোন আপত্তি নেই এবং দুজনের খুব শীঘ্রই বিয়ে হতে চলেছে বলে শোনা যায় টিনসেল টাউনে। অন্যদিকে কানাঘুষো শোনা যায় ক্যাটরিনা কাইফ সম্পর্কে রয়েছেন অভিনেতা ভিকি কৌশলের সঙ্গে। যদিও তারা কেউই এই নিয়ে কোনোদিনও মুখ খোলেননি।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ