নয়াদিল্লি: পুলওয়ামার জঙ্গি হামলার রোষ আছড়ে পড়ল কাশ্মীরি পড়ুয়াদের একাংশের উপর৷ দেশের নানা প্রান্ত থেকে তাদের হেনস্থার খবর পাওয়া গিয়েছে৷ আতঙ্কে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন কাশ্মীরি পড়ুয়ারা৷ তাদের সাহায্যে এগিয়ে এল সিআরপিএফ৷ চালু হল হেল্পলাইন নম্বর৷ ২৪ ঘণ্টা খোলা থাকবে এই হেল্প লাইন নম্বর৷ অসুবিধায় পড়লে ফোন করলে মিলবে সাহায্য৷ পরিস্থিতির দিকে নজর রাখছে কাশ্মীর প্রশাসনও৷ হেল্প লাইন নম্বরটি হল ১৪৪১১ অথবা ৭০৮২৮১৪৪১১ এই নম্বরে এসএমএস করার কথাও জানানো হয়েছে৷

শনিবার দেশের নানা প্রান্ত থেকে কাশ্মীরি পড়ুয়ারা তাদের প্রতি হেনস্থা ও দুর্ব্যবহারের অভিযোগ এনেছেন৷ যেমন উত্তরাখণ্ডের দেরাদুনে একদল কাশ্মীরি পড়ুয়াকে বাড়ি খালি করে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন বাড়ির মালিক৷ সম্পত্তি নষ্ট হতে পারে এই আশঙ্কায় কাশ্মীরি পড়ুয়াদের বাড়ি খালি করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে৷ খবরটি ছড়িয়ে পড়তেই দেরাদুন পুলিশের তরফে কাশ্মীরি পড়ুয়াদের সবরকম সাহায্যের আশ্বাস দেওয়া হয়েছে৷

অন্যদিকে চন্ডীগড়ের আম্বালাতেও একই ঘটনা ঘটেছে৷ সেখানে গ্রামের এক পঞ্চায়েত প্রধান কাশ্মীরি পড়ুয়াদের ভাড়া বাড়ি থেকে উচ্ছেদ করার বিধান দিয়েছেন বলে অভিযোগ৷ বিধান না মানলে বাড়ির মালিককে বিশ্বাসঘাতকের তকমা দেওয়া হবে৷ সোশ্যাল মিডিয়ায় এমনই একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে৷ তারপরই এমএম বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ পড়ুয়াদের হোস্টেলে ঠাঁই দিয়েছে৷

কাশ্মীরি পড়ুয়াদের উপর হেনস্থার অভিযোগ যেমন সামনে এসেছে তেমনই তাদের বিরুদ্ধে অশান্তি ছড়ানোর অভিযোগও উঠেছে৷ যেমন পুলওয়ামার আত্মঘাতী হামলাকে সমর্থন জানিয়ে হোয়াটসঅ্যাপে এসএমএস করাকে কেন্দ্র করে শুক্রবার উত্তপ্ত হয়ে ওঠে দেরাদুন৷ কিছু ডানপন্থী সংগঠন বিশ্ববিদ্যালয় ঘেরাও করে অভিযুক্ত কাশ্মীরি পড়ুয়াকে গ্রেফতারের দাবি জানান৷ অভিযোগের পরই ওই পড়ুয়াকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাসপেন্ড করা হয়েছে৷ সেই সঙ্গে পুলিশে দায়ের হয়েছে অভিযোগ৷ অপরদিকে বেঙ্গালুরুতে পুলওয়ামার হামলাকে ‘আসল সার্জিক্যাল স্ট্রাইক’ বলে মন্তব্যের জেরে এক কাশ্মীরি যুবকের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের হয়েছে