নয়াদিল্লি:  ভারতের ইতিহাসে সবথেকে বড় জঙ্গি হামলা। এই হামলায় ৪০জন সিআরপিএফ জওয়ানকে শহিদ হতে হয়েছে। আর এই ঘটনার পরে গোটা দেশ ফুঁসছে বদলা নেওয়ার দাবিতে। একটাই আওয়াজ, পাকিস্তানকে যোগ্য জবাব দিতে হবে। সেই বদলা নেওয়ার আগুন ক্রমশ ছড়িয়ে পড়ছে।

আর বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই বদলা নেওয়ার আগুন ছড়িয়ে পড়ছে কাশ্মীরিদের উপর। দেশের বিভিন্ন প্রান্তে থাকা কাশ্মীরের নাগরিকদের আক্রান্ত হতে হচ্ছে। বিশেষ করে দিল্লিতে পড়তে থাকা কাশ্মীরি ছাত্রদের উপর আঘাত আসছে বারবার। যদিও এই সংক্রান্ত সমস্ত অভিযোগ উড়িয়ে দিলেন মানবসম্পদ উন্নয়নমন্ত্রী প্রকাশ জাভরেকর।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ‘কাশ্মীরি পড়ুয়াদের ভয় পাওয়ার কোনও কারণ নেই। পুলওয়ামায় হামলার পর দেশবাসীর মনে প্রচুর ক্ষোভ তৈরি হয়েছে। কিন্তু সেই জন্য কাউকে হেনস্তা করা হয়নি।’ কিন্তু ভয়াবহ জঙ্গি হামলার পরেই দিল্লিতে কাশ্মীরি পড়ুয়াদের আক্রান্ত হওয়ার খবর সংবাদমাধ্যমে উঠে এসেছে। কিন্তু সেই সমস্ত অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন মোদীর মন্ত্রিসভার এই মন্ত্রী।

উল্লেখ্য, আত্মঘাতী জঙ্গি হামলার পর কাশ্মীরি পড়ুয়ারা এই সন্ত্রাসবাদী হামলাকে সমর্থন করছে, এই অভিযোগে তাদের বিরুদ্ধে দেশদ্রোহিতার ধারায় মামলা করা হয় দেশের বিভিন্ন প্রান্তে। পাশাপাশি দেরাদুনের দুটি কলেজ উপত্যকার কোনও পড়ুয়াকে ভর্তি না নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলেও খবর। যদিও এই সংক্রান্ত কোনও অপ্রীতিকর ঘটনা রুখতে সব রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলকে নির্দেশিকা পাঠানো হয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের তরফ।