নয়াদিল্লি: কাশ্মীর থেকে তুলে নেওয়া হবে ৩৭০। গত লোকসভা নির্বাচনের আগে ইস্তেহারে এমনটাই দাবি করা হয়েছিল বিজেপির তরফে। সেই মতো ক্ষমতার আসার পরেই কাশ্মীর থেকে বিশেষ মর্যাদা তুলে নেয় নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় মোদী সরকার। যা নিয়ে জোর রাজনৈতিক বিতর্ক তৈরি হয়। মোদী সরকারের এহেন সিদ্ধান্ত নিয়ে মুখ খোলে পাকিস্তানও। এই সিদ্ধান্তের তীব্র বিরোধীতা করেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। যদিও হাজারো বিতর্কের মধ্যেই নিজের সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসেননি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। মোদী সরকারের এহেন সিদ্ধান্তের পর বিপুল বিনিয়োগের প্রস্তাব কাশ্মীরের জন্যে এসেছে বলে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী পীযূষ গোয়েল।

মোদী সরকারের গুরুত্বপূর্ণ এই মন্ত্রীর দাবি, সংবিধানের অনুচ্ছেদ ৩৭০ বাতিলের পর থেকে কাশ্মীরে এখনও পর্যন্ত ১৩ হাজার কোটি টাকারও বেশি বিনিয়োগের প্রস্তাব এসেছে। এক লিখিত প্রশ্নের জবাবে একথা জানিয়ে দিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী পীযূষ গোয়েল। গত ৫ অগস্ট সংসদে সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিলের বিল পাশ করেছে মোদী সরকার। সরকারের পক্ষে দাবি করা হয়, এক দেশ এক নিশান, এই তথ্য প্রতিষ্ঠা করতেই মোদী সরকার এহেন সিদ্ধান্ত নিয়েছে। জানানো হয়, সরকারের এই ঐতিহাসিক সিদ্ধান্তে জম্মু-কাশ্মীরে ব্যাপক বিনিয়োগ হবে। ভূস্বর্গের চেহারাই বদলে যাবে।

সরকারের সেই দাবির সত্যতা বুঝতেই তৃণমূলের এমপি মালা রায় জম্মু-কাশ্মীরে বিনিয়োগ সংক্রান্ত প্রশ্ন করেন। সরকারের কাছে তিনি লিখিত জবাব চান। জিজ্ঞাসা করা হয়, গত ৫ আগস্ট থেকে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত জম্মু-কাশ্মীরে বেসরকারি বিনিয়োগের পরিমাণ কত? লিখিত উত্তরে কেন্দ্রীয় শিল্প-বাণিজ্যমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল জানিয়েছেন, জম্মু-কাশ্মীর সরকার যে তথ্য দিয়েছে, তাতে ৪৪টি প্রকল্পে বেসরকারি বিনিয়োগের প্রস্তাব এসেছে। যার আর্থিক মূল্য ১৩ হাজার ১২০ কোটি টাকা। মন্ত্রী জানিয়েছেন, ২০১৯ সালের ৫ আগস্ট থেকে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত ওই প্রস্তাব এসেছে। সবই খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।