গল: চতুর্থ ইনিংসে ২৬৮ রান তাড়া করতে নেমে চতুর্থদিনের শেষে কোনও উইকেট না হারিয়ে ১৩৩ রানে খেলা শেষ করেছিল শ্রীলঙ্কা। রান তাড়া করতে নেমে শুরুতে অধিনায়ক দিমুথ করুণারত্নে ও আরেক ওপেনার লাহিরু থিরিমানের সাবলীল ব্যাটিংয়ে ম্যাচ জয়ের দিকে অনেকটাই এগিয়ে গিয়েছিল দ্বীপ রাষ্ট্র। পঞ্চমদিন সকালে ঘটল না বড় কোনও অঘটন। দিমুথ করুণারত্নের অধিনায়কোচিত শতরানে প্রথম টেস্ট জিতে দু’ম্যাচের সিরিজে সহজেই এগিয়ে গেল শ্রীলঙ্কা।

ঘরের মাঠে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের শুরুতে নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে ৬০ পয়েন্ট সংগ্রহ করে নিল তারা। ১২২ রান করে শ্রীলঙ্কার ম্যাচ জয়ের নায়ক অধিনায়ক করুণারত্নে। ৬৪ রান করে যোগ্য সহযোগীতা করলেন থিরিমানে। মূলত প্রথম উইকেটে ওপেনারদ্বয়ের ১৬১ রানের মূল্যবান পার্টনারশিপই জয়ের রাস্তা অনেকটা সহজ করে দিল আয়োজক দেশের। গলেতে ৬ উইকেটে জয় দিয়ে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে জয়যাত্রা শুরু হল দ্বীপ রাষ্ট্রের।

আরও পড়ুন: পূজারার ও রোহিতের ব্যাটে গা-গরম ভারতের

পঞ্চম দিন সকালে স্কোরবোর্ডে ২৮ রান যোগ হওয়ার পর সমারভিলের বলে এলবিডব্লু হয়ে ফেরেন থিরিমানে। ৬৪ রানে থেমে যায় শ্রীলঙ্কা ওপেনারের ইনিংস। তবে উলটোদিকে করুণারত্নেকে তিন অঙ্কের আগে থামানো সম্ভব হয়নি। দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে দলকে ধীরে ধীরে লক্ষ্যমাত্রার দিকে এগিয়ে নিয়ে যান তিনি। একইসঙ্গে শ্রীলঙ্কা দলনায়ক পূর্ণ করেন তাঁর শতরান। তবে ১২২ রানের মাথায় সাউদির ডেলিভারিতে উইকেটের পিছনে ক্যাচ দিয়ে আউট হন তিনি। তবে দল তখন অনেকটাই নিরাপদ জায়গায়। যদিও ৬ বলে ১০ রানের সংক্ষিপ্ত ইনিংস খেলে আগেই ফিরে গিয়েছেন কুশল মেন্ডিস।

আরও পড়ুন: সিনসিনাটি মাস্টার্সের সেমিতে অপ্রত্যাশিত হার জকোভিচের

করুণারত্নের ১২২ রানের ইনিংস সাজানো ছিল ৬টি চার ও ১টি ছয়ে। দলনায়ক ফিরে গেলেও এরপর শ্রীলঙ্কার ম্যাচ জয়ে কোনও অসুবিধা হয়নি। লক্ষ্যমাত্রা থেকে ১৮ রান দূরে দাঁড়িয়ে কুশল পেরেরার উইকেট খোয়ালেও তা কোনওমতেই ভীতির সঞ্চার করেনি। শেষ অবধি ৪ উইকেট খুঁইয়েই প্রয়োজনীয় রান তুলে নেয় আয়োজক দেশ। অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউজ ২৮ রানে ও ধনঞ্জয়া ডি’সিলভা ১৪ রানে অপরাজিত থেকে দলের জয় নিশ্চিত করেন।

আগামী বৃহস্পতিবার থেকে কলম্বোয় শুরু সিরিজের দ্বিতীয় তথা অন্তিম টেস্ট।