কোলার: সুরাপানে ছাড় দিয়েছে সরকার। দেশজুড়ে খুলে গিয়েছে ছোটো-বড়ো সমস্ত মদের দোকান। এতদিন পর রঙিন পানীয়ের আস্বাদন গ্রহন করতে পারায় আনন্দে আটখানা অবস্থা অনেকেরই।

তবে কর্ণাটকের কোলার গ্রামে এক সুরাপ্রেমী মদের নেশায় যা করেছে, তা শুনলে রীতিমতো চোখ কপালে ওঠার জোগাড় হবে আপনার।

কর্ণাটকের কোলার জেলার মস্তুর গ্রামের বাসিন্দা বছর ৩৮এর কুমার। সারাদেশে মদের দোকান খুলে যাওয়ায়, এদিন সকালে নিজের বাইকে করে মদ কিনতে যাচ্ছিলেন তিনি।

এত পর্যন্ত সবকিছু ঠিকঠাকই ছিলো। কিন্তু মাঝপথে বাধ সাধল এক বিষধর সাপ। বাইক চালানোর সময় রাস্তার মাঝখানে আচমকা ওই নাগরাজ চলে আসে। যারফলে বাইকের চাকা সাপের গায়ের ওপর দিয়ে চলে যায়। এতে বেজায় চটে যান কুমার বাবু।

মদের দোকানে লাইন দিতে দেরি হয়ে যাওয়ায় আহত সাপটিকে হাতে তুলে নেন তিনি। এরপর যা করেছে, তা আরও ভয়ানক ব্যাপার। সাপটিকে শুধু ধরেই ক্ষান্ত হননি তিনি। রীতিমতো সাপটিকে চিবিয়ে টুকরো করে ফেলেন কুমার বাবু। আর যা দেখে হতবাক সেই সময় ঘটনাস্থলে উপস্থিত সাধারণ মানুষজন। মদের টানে মানুষ খুন করা বা বাড়িতে ঝামেলা করা এইসব কান্ড হামেশাই শোনা যায়। তবে কর্ণাটকের এই ঘটনা এই প্রথম।

আর যা নিয়ে সকাল থেকেই সরগরম নেটপাড়া। নেটিজেনদের আলোচ্য বিষয়ই হয়ে দাঁড়িয়েছে কর্ণাটকের সুরাপ্রেমী কুমার বাবু।

তবে এমন দৃশ্য দেখে কিছুটা হচকিয়ে গেলেও সঙ্গে সঙ্গে পুলিশে খবর দেওয়া হয়। এদিকে পুলিশ আসতে না আসতেই মারা যায় সাপটি। ফলে লকডাউনের বাজারে মদ নিয়ে যা শুরু হয়েছে তাতে অদূর ভবিষ্যৎ-এ কী যে অপেক্ষা করছে, তা বলাই বাহুল্য।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ