কটক: দূর্বল মিজোরামের বিরুদ্ধে একতরফা জয়ের রেশ কাটতে না কাটতেই সৈয়দ মুস্তাক আলি টি-২০’তে মুখ থুবড়ে পড়ল বাংলা৷ টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় ম্যাচেই কর্ণাটকের কাছে অসহায় আত্মসমর্পণ করল মনোজ তিওয়ারিরা৷

টসে জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে বাংলা ১৯.৪ ওভারে ১৩১ রানে অলআউট হয়ে যায়৷ পালটা ব্যাট করতে নেমে ১৫.৫ ওভারে মাত্র এক উইকেটের বিনিময়ে ১৩৪ রান তুলে ম্যাচ জিতে যায় কর্ণাটক৷

আরও পড়ুন: আইপিএলে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান বন্ধ, শহিদ পরিবারকে আর্থিক সাহায্য বোর্ডের

ওপেনার শ্রীবৎস গোস্বামী ও দলনায়ক মনোজ ছাড়া বাংলার আর কোনও ব্যাটসম্যানই বলার মতো রান করতে পারেননি৷ শ্রীবৎস দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৪০ রান করে আউট হন৷ ২৯ বলের ইনিংসে তিনি ৬টি চার ও ১টি ছক্কা মারেন৷ তিওয়ারি খুঁটে খুঁটে ৩৭ বলে ৩৬ রান করে ক্রিজ ছাড়েন৷

অপর ওপেনার বিবেক সিং ১০ রান করে আউট হন৷ গত ম্যাচে দুরন্ত শতরানকারী অভিমন্যু ঈশ্বরণ কর্ণাটকের বিরুদ্ধে ১৬ রানের বেশি সংগ্রহ করতে পারেননি৷ চোট সারিয়ে সদ্য মাঠে ফেরা ঋদ্ধিমান সাহা ৬ রান করে দূর্ভাগ্যজনক রানআউট হন৷ ঋত্ত্বিক রায়চৌধুরি ১৭ রানের যোগদান রাখেন৷টেল এন্ডাররা কেউই নূন্যতম অবদান রাখতে পারেননি ব্যাট হাতে৷

আরও পড়ুন: লো স্কোরিং ম্যাচে দুরন্ত জয় ভারতের

প্রদীপ্ত প্রামানিক ১, প্রয়াস রায়বর্মন ১, কণিষ্ক শেঠ ২ ও অশোক দিন্দা ১ রান করে প্যাভিলিয়নের পথে হাঁটা লাগান৷ অভিমন্যু মিঠুন ৩টি এবং বিনয় কুমার ও মনোজ ভান্ডেজ দু’টি করে উইকেট নেন৷ কেসি কারিয়াপ্পা নিয়েছেন একটি উইকেট৷

জবাবে ব্যাট করতে নেমে দুই ওপেনার রোহন কদম ও বিআর শরৎ কর্ণাটককে জয়ের মঞ্চে বসিয়ে দেন৷ শরৎ ৯টি বাউন্ডারির সাহায্যে ৩৭ বলে ৫০ রান করে প্রদীপ্তর বলে আউট হন৷ রোহন ১০টি চার ও ২টি ছক্কার সাহায্যে ৫৫ বলে ৮১ রান করে অপরাজিত থাকেন৷ করুণ নায়ার ২ রান করে নটআউট থেকে যান৷