স্টাফ রিপোর্টার, বাঁকুড়া: ‘মদ্যপ’ অবস্থায় বাঁকুড়ার কোতুলপুরের লাউগ্রাম গ্রাম পঞ্চায়েত কারকবেড়িয়া সমবায় কৃষি উন্নয়ন সমিতিতে অবাধে ‘তাণ্ডব’ চালানোর অভিযোগ উঠল শাসক দলের স্থানীয় অঞ্চল কনভেনর বাসুদেব হাজরার বিরুদ্ধে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় ‘ভাইরাল’ হওয়া ওই ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, বাসুদেব হাজরা নামে ওই তৃণমূল নেতা সমবায় সমিতির কার্যালয়ে ঢুকে বিভিন্ন ফাইলপত্র ছুঁড়ে ফেলে পা দিয়ে মাড়িয়ে দেওয়ার পাশাপাশি অফিসের কম্পিউটার-সহ ইলেকট্রনিক্স দ্রব্য ভেঙ্গে ফেলছেন। কেবল সংযোগ ছিঁড়ে ফেলার পাশাপাশি উপস্থিত এক কর্মীর হাত থেকে জরুরি কাগজপত্রও ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করছেন।

‘ভাইরাল’ ওই ভিডিও-র তথ্যানুসন্ধানে নেমে আমরা কথা বলেছিলাম অভিযুক্ত তৃণমূল নেতা বাসুদেব হাজরা, ঘটনার সময় উপস্থিত সমবায় কর্মী বিজল কোলে, স্থানীয় তৃণমূল নেতা সমীর বাগ ও বিজেপির সুমন মন্ডলের সঙ্গে।

অন্যান্য দিনের মতো গত বৃহস্পতিবার কারকবেড়িয়া সমবায় কৃষি উন্নয়ন সমিতিতে কাজ চলছিল। হঠাৎই দুপুর নাগাদ সমবায় সমিতির অফিসে ঢুকে পড়েন ওই তৃণমূল নেতা। ঢুকেই উপস্থিত কর্মীদের বেরিয়ে যাওয়ার নিদান দেন। কিন্তু কর্মীরা অফিস থেকে না বেরোতে চাইলে সেই রাগ গিয়ে পড়ে অফিসের কম্পিউটারের উপর। কম্পিউটারের তার ছিঁড়ে মাটিতে আছড়ে ফেলে, দরকারী নথিপত্র ছড়িয়ে ফেলেও ক্ষান্ত হননি।

এক কর্মীর হাত থেকে রসিদ বই কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা করেন। সেই ছবিও ঐ ‘ভাইরাল’ ভিডিওতে স্পষ্ট। শাসক দলের এই গুণধর নেতার ‘দাদাগিরি’র ছবি দেখে হতবাক কোতুলপুরের মানুষ। বিষয়টি প্রশাসন, সমবায় দফতর ও পুলিশে জানানো হয়েছে বলে ওই সমবায় সূত্রে জানানো হয়েছে।

সেই সময় উপস্থিত সমবায় কর্মী ‘বিজল কোলে বলেন, অফিসে ঢুকেই উনি এই কাণ্ড ঘটান। তিনি অবসর গ্রহণের পরে অনুমোদন পেয়েই কাজ করেন বলেও জানান। অভিযুক্ত তৃণমূল নেতা বাসুদেব হাজরার দাবি, সমবায়ের ‘অবসরপ্রাপ্ত’ ম্যানেজার গরীব মানুষদের ঋণ না-দিয়ে বড়লোকদের দিচ্ছেন। এই কথা বলতে গেলে তার সঙ্গে খারাপ আচরণ করা হয়। তিনি কম্পিউটার-সহ অন্যান্য সামগ্রী ভাঙ্গচুর করেননি বলে দাবি করেন।

বাসুদেব হাজরার পাশে দাঁড়িয়েছে তার দলও। তৃণমূল নেতা সমীর বাগ বলেন, বাসু ভালো ছেলে। মানসিকভাবে বিপর্যস্ত আছে। যা হয়েছে ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ। বিজেপি এই ঘটনা ‘তৃণমূলের কালচার’ বলে দাবি করেছে। দলের নেতা সুমন মণ্ডল বলেন যা হয়েছে তা ‘ঐ দলের গোষ্ঠীদ্বন্দে’র ফল বলে তার দাবি।

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা