মুম্বই: সত্তর বছরের বেশ সময় ধরে রুপোলি ইতিহাসের গর্ভগৃহ আর কে স্টুডিও বিক্রির পথে৷ ঐহিত্যবাহী এই প্রতিষ্ঠানটি বেচে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েই ফেলেছেন বিখ্যাত কাপুর পরিবারের বর্তমান উত্তরাধিকারীরা৷ এমনই সংবাদ ছড়িয়েছে সিনে দুনিয়ায়৷ আর সেই খবরে মুষড়ে পড়ছেন বহুজন৷ কারণ এই স্টুডিওর সঙ্গে জড়িয়ে আছে ভারতীয় চলচ্চিত্রের ইতিহাস৷

মহারাষ্ট্রের চেম্বুরে ১৯৪৮ সালে রাজ কাপুর প্রতিষ্ঠা করেছিলেন আর কে স্টুডিও ৷ একই সঙ্গে আর কে ফিল্মসের ব্যানারে তৈরি হতে শুরু করে একের পর এক কালজয়ী সিনেমা৷ সেই শুরু, তার পর দশকের পর দশক ধরে প্রতিষ্ঠানটি চলে এসেছে৷ কাপুর পরিবারের বর্তমান উত্তরাধিকারী তথা অভিনেতা ঋষি কাপুর, রণধীর কাপুর ও তাদের বংশজরা ঠিক করেছেন আর নয় এবার স্টুডিও বিক্রি করে দিতেই হবে৷

সাক্ষাৎকারে ঋষি কাপুর জানিয়েছেন, আমাদের পরিবার ও ভারতবাসীর সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে আর কে স্টুডিওর আবেগ৷ আমরা প্রথম দিকে চেষ্টা করেছিলাম স্টুডিও নবায়ন করে চালাতে৷ কিছুটা কাজ হয়েছিল৷ কিন্তু পরে দেখা গিয়েছে এভাবে চালানো আর সম্ভব হচ্ছে না৷ ফলে আবেগ চেপে রেখেই বিক্রির সিদ্ধান্ত নিয়েছি৷

আর কে স্টুডিও কিনতে আগ্রহী হয়েছে বহুজাতিক সংস্থা৷ তাদের মর্জির উপরেই স্টুডিওর পরবর্তী অবস্থা নির্ভর করছে৷ প্রশ্ন উঠছে, বহুজাতিক সংস্থার কর্পোরেট ফাঁসে হয়ত আর কে স্টুডিও তার স্বাভাবিক নান্দনিকতা হারিয়ে ফেলবে৷

১৯৪৮ সালে প্রতিষ্ঠার পরেই এই স্টুডিও থেকে তৈরি হয়েছিল ‘আগ’ ছবি৷ স্বাধীনোত্তর ভারতে সেই ছবি প্রবল আলোড়ন ছড়ায়৷ এছাড়াও একের পর এক সুপারহিট সিনেমা তৈরি করা হয়েছে আর কে স্টুডিও-তে৷ ১৯৫১ সালে আওয়ারা, তার পরে পরে শ্রী ৪২০, বুট পালিশ, জাগতে রহো জনপ্রিয়তার পাশাপাশি সামাজিক আলোড়ন তৈরি করে৷ জিস দেশ মে গঙ্গা বহেতি হ্যায়, ববি, রাম তেরি গঙ্গা মইলি সহ বহু ছবি তৈরি হয়েছে এখানেই৷