নয়াদিল্লি: ‘বিশ্বকাপ খেলতে ইংল্যান্ড উড়ে যাওয়ার আগে পর্যন্ত আমাদের পক্ষে ভাবা সম্ভব ছিল না যে, আমরা বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হতে পারি৷’ ৮৩’র বিশ্বকাপ জয় নিয়ে স্মৃতিচারণে এমনটাই জানালেন কৃষ্ণমাচারি শ্রীকান্ত৷ তা সত্ত্বেও ভারত সেবার লর্ডসে ইতিহাস গড়ে ক্যাপ্টেন কপিল দেবের জন্য৷ শ্রীকান্তের মতে, ‘কপিলই দলের মধ্যে আত্মবিশ্বাস সঞ্চার করে৷ দলের মধ্যে বিশ্বাস জাগায়, আমরাও জিততে পারি৷’

আরও পড়ুন: World Cup 2019: ওয়ার্নারের জন্য ‘চোর’ ধ্বনি গ্যালারিতে , ব্যাটে জবাব দিলেন স্মিথ

সেই ইংল্যান্ডেই বিরাট কোহলিরা বিশ্বকাপ অভিযান শুরু করার আগে শ্রীকান্ত তাঁদের বিশ্বজয় নিয়ে বেশ কিছু মজাদার তথ্য ভাগ করে নেন অনুরাগীদের সঙ্গে৷ তিনি স্পষ্ট জানান যে, ইংল্যান্ডে ভালো কিছু করে দেখানোর আশা কখনই করেননি তাঁরা৷ সে কারণেই মুম্বই (তৎকালীন বম্বে) থেকে তাঁর বিমানের সূচি ছিল নিউইয়র্ক পর্যন্ত৷ মাঠে লন্ডনে সাময়িক বিরতি ছিল মাত্রা৷

আরও পড়ুন: World Cup 2019: স্টেজ রিহার্সালে হোঁচট খেলে বিশ্বকাপে ফল ভালো করে ভারত

শ্রীকান্তের কথায়, ‘যখন আমরা বিশ্বকাপ খেলতে দেশ ছাড়ি, তখন একবারের জন্যও ভাবিনি যে, আমরা বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হতে পারি৷ সে কারণেই আমি বিমানের টিকিট বুক করিয়েছিলাম বম্বে থেকে নিউইয়র্ক পর্যন্ত৷ মাঝে বিশ্বকাপের জন্য লন্ডনে সাময়িক বিরতি ছিল মাত্র৷ তার সঙ্গত কারণও ছিল৷ আগের দু’টি বিশ্বকাপে আমরা একমাত্র পূর্ব আফ্রিকাকে হারিয়েছিলাম৷ এমনকি সেই সময়ে টেস্ট স্ট্যাটাস না পাওয়া শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধেও হেরেছিলাম আমরা৷ এই অবস্থায় বিশ্বকাপ জয়ের কথা মাথায় আসা সম্ভব ছিল না আমাদের৷’

আরও পড়ুন: World Cup 2019: নিউজিল্যান্ড ম্যাচের ফলাফলে উদ্বিগ্ন হওয়ার কারণ দেখছেন না জাদেজা

পরে শ্রীকান্ত বলেন, ‘কপিলই নিজের আত্নবিশ্বাসটা ছড়িয়ে দেয় দলের মধ্যে৷ ও যখন ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারানোর কথা বলে, আমাদের মনে হয়েছিল বুঝি ওর মাথা খারাপ হয়ে গিয়েছে৷ তবে পরে আমাদের মনে হয়, ও হয়ত ভুল বলছে না৷ জিম্বাবোয়ের বিরুদ্ধে ১৭ রানে ৫ উইকেটের পর কপিলের অপরাজিত ১৭৫ রানের ইনিংসটা যে মোমেন্টাম তৈরি করে, সেটাই আমাদের বাড়তি উদ্দীপ্ত করে তোলে৷ পরে অস্ট্রেলিয়াকে এবং সেমিফাইনালে ইংল্যান্ডকে হারিয়ে দিই আমরা৷ ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে ফাইনালে মাত্র ১৮৩ রানের পুঁজি নিয়ে জয়টা তো ইতিহাস হয়ে গিয়েছে৷ লর্ডসের সেদিনের জয়টাই ভারতীয় ক্রিকেটের ছবিটা বদলে দেয়৷’