নয়াদিল্লি: করোনার জেরে দেশব্যাপী লকডাউনে দেশ। তৃতীয় দফা লকডাউনের ঘোষণা শুক্রবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের তরফ থেকে করা হলেও আপাতত দ্বিতীয় দফা লকডাউনের সায়াহ্নে দাঁড়িয়ে দেশবাসী। আর এমন সময় খেটে খাওয়া মানুষ, দিন আনা দিন খাওয়া সাধারণ মানুষদের মতো দেশজুড়ে অসহায় অবস্থার মধ্যে রয়েছেন বহু প্রাক্তন ক্রিকেটার। যাদের কাছে লকডাউন কার্যত অভিশাপ হয়ে দেখা দিয়েছে। এমনই দেশের প্রাক্তন ৩০জন ক্রিকেটারকে সাহায্যে উদ্যোগী হল ইন্ডিয়ান ক্রিকেটার্স অ্যাসোসিয়েশন (আইসিএ)।

আর আইসিএ’র এই মহৎ উদ্যোগে নিজেদের আর্থিক অনুদান নিয়ে এগিয়ে এলেন দুই কিংবদন্তি সুনীল গাভাসকর ও কপিল দেব নিখাঞ্জ। ইতিমধ্যেই মহৎ এই উদ্যোগে আইসিএ’র তহবিলে জমা পড়েছে ৩৯ লক্ষ টাকারও বেশি। সানি-কপিল ছাড়াও আইসিএ’র এই উদ্যোগে সঙ্গী হয়েছেন গৌতম গম্ভীর, গুন্ডাপ্পা বিশ্বনাথের মতো নাম। পিটিআই’কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে আইসিএ প্রেসিডেন্ট অশোক মালহোত্রা জানিয়েছেন, ‘সুনীল গাভাসকর, কপিল দেব, গৌতম গম্ভীর, গুন্ডাপ্পা বিশ্বনাথের মতো নাম আমাদের এই উদ্যোগে সামিল হয়েছে। যা আমাদের উদ্যোগকে আরও ত্বরান্বিত করেছে। গুজরাতের একটি কর্পোরেট সংস্থাও তাদের সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে।’

জানা গিয়েছে আগামী ১৫মে অবধি আর্থিক সাহায্য গ্রহণ করবে আইসিএ। এরপর প্রত্যেকটি জোন থেকে ৫-৬ জন করে ক্রিকেটারদের বেছে নেওয়া হবে সাহায্যের জন্য। ‘যে সকল ক্রিকেটারদের অর্থ উপার্জনের রাস্তা বন্ধ। ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড কিংবা তাদের রাজ্য সংস্থার থেকে যে সকল ক্রিকেটাররা কোনওরকম পেনশন পান না তাদেরকে সাহায্য করবে আইসিএ।’ প্রেসিডেন্ট অশোক মালহোত্রা আগেই জানিয়েছিলেন সে কথা। ইন্ডিয়ান ক্রিকেটার্স অ্যাসোসিয়েশন নিজে এই উদ্যোগে ১০লক্ষ টাকা দান করেছে বলে জানা গিয়েছে।

উল্লেখ্য, দেশের প্রাক্তন ক্রিকেটারদের অফিসিয়াল অ্যাসোসিয়েশন হিসেবে ৫জুলাই, ২০১৯ পথ চলা শুরু করে ইন্ডিয়ান ক্রিকেটার্স অ্যাসোসিয়েশন। বিসিসিআই’য়ের অনুমোদনপ্রাপ্ত এই নন প্রফিট সংস্থায় ১৭৫০ জন প্রাক্তন ক্রিকেটার নথিভুক্ত হয়েছেন।

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।