নয়াদিল্লি: হৃদরোগে আক্রান্ত হলেন কপিল দেব। ভারতের প্রথম বিশ্বজয়ী অধিনায়ক নয়াদিল্লির একটি হাসপাতালে বর্তমানে চিকিৎসাধীন। ইতিমধ্যেই প্রাক্তন ক্রিকেটারের শরীরে অ্যাঞ্জিওপ্লাস্টি করা হয়েছে। দীর্ঘদিন ধরেই ডায়াবেটিস বাসা বেঁধেছে প্রাক্তন অধিনায়কের শরীরে।

শুক্রবার সকালে বিশ্বজয়ী অধিনায়কের হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার ঘটনা ছড়িয়ে পড়তেই উৎকণ্ঠা বেড়েছে ক্রিকেট অনুরাগীদের মধ্যে। সোশ্যাল মিডিয়ায় কিংবদন্তির দ্রুত আরোগ্য কামনা করছেন ক্রিকেট অনুরাগীরা। মরুশহরে চলতি আইপিএল নিয়ে মতামত পোষণের ব্যাপারে বেশ সক্রিয় ছিলেন ‘হরিয়ানা হ্যারিকেন’।

তাই হঠাতই তাঁর শারীরীক অসুস্থতার খবরে মন খারাপ ক্রিকেট অনুরাগীদের। বিশ্বের সর্বকালের অন্যতম সেরা এই অল-রাউন্ডার ভারতের প্রথম বিশ্বজয়ী ক্রিকেট দলের অধিনায়ক।

১৯৮৩ শক্তিশালী ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে লর্ডসের ব্যালকনিতে কপিল দেবের প্রুডেনসিয়াল ট্রফি হাতে সেই দৃশ্য আজও দেশের আপামর ক্রিকেট অনুরাগীদের হৃদয়ে ঝড় তোলে।

ব্যাট হাতে ৩০৩ রানের পাশাপাশি বল হাতে ১২টি উইকেট নিয়ে ১৯৮৩ বিশ্বকাপে দেশকে সামনে থেকেই নেতৃত্ব দিয়েছিলেন কপিল দেব। একইসঙ্গে টুর্নামেন্টে সাতটি ক্যাচও নিয়েছিলেন ‘হরিয়ানা হ্যারিকেন’। লকডাউনের মাঝে দেশের প্রথম বিশ্বজয়ী অধিনায়ক নয়া লুকে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছিলেন।

নিজেই নিজের নয়া লুক অনুরাগীদের সঙ্গে শেয়ার করে নিয়েছিলেন। চলতি বছর ক্রিসমাসে মুক্তি পাবে কপিল দেবের অটো-বায়োগ্রাফিক্যাল ড্রামা ‘৮৩’। সবমিলিয়ে প্রাণোচ্ছ্বল এই ক্রিকেট ব্যক্তিত্বের অসুস্থ হওয়ার খবরে ক্রিকেটমহলে উদ্বেগ ছড়িয়েছে।

তাঁর শারীরীক অবস্থার পরবর্তী আপডেটের জন্য মুখিয়ে অনুরাগীরা। আপাতত স্থিতিশীল তিনি। নয়াদিল্লির ওখলা রোডের ফর্টিস এসকর্টস হাসপাতাল সূত্রে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, ‘বুকে ব্যথা অনুভব করায় ২৩ অক্টোবর রাত ১টায় ৬২ বছর বয়সী ভারতের প্রাক্তন অধিনায়ক কপিল দেব জরুরি বিভাগে ভর্তি হন।

মধ্যরাতে তাঁর শরীরে জরুরি ভিত্তিতে কোরোনারি অ্যাঞ্জিওপ্লাস্টি করেন কার্ডিওলজি বিভাগীয় প্রধান ড: অতুল মাথুর। আপাতত আইসিইউ’তে আছেন তিনি। তবে অনেকটাই স্থিতিশীল। দিনদু’য়েকের মধ্যে তাঁকে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হবে।’

জেলবন্দি তথাকথিত অপরাধীদের আলোর জগতে ফিরিয়ে এনে নজির স্থাপন করেছেন। মুখোমুখি নৃত্যশিল্পী অলোকানন্দা রায়।