স্টাফ রিপোর্টার, হাওড়া: কন্যাশ্রী প্রকল্পের পরিসংখ্যান আগের অর্থবর্ষের তুলনায় চলতি অর্থবর্ষে আরও বেড়েছে৷ এমনটাই ঘোষণা করলেন জেলাশাসক চৈতালি চক্রবর্তী। ১৪ আগস্ট কন্যাশ্রী দিবস উপলক্ষে হাওড়া জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ও পুরনিগমের সহযোগিতায় মঙ্গলবার দুপুরে শরৎ সদনে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি এই ঘোষণা করেন।

এদিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের সমবায় মন্ত্রী অরূপ রায়, রাজ্যের ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী লক্ষ্মীরতন শুক্লা, বিধায়ক ব্রজমোহন মজুমদার, শীতল সর্দার, সাংসদ প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়, জেলা পরিষদের সভাধিপতি করবী ধূল, জেলাশাসক চৈতালি চক্রবর্তী, হাওড়ার পুলিশ কমিশনার তন্ময় রায়চৌধুরী, গ্রামীণ পুলিশ সুপার গৌরব শর্মা, হাওড়া পুরসভার ডেপুটি মেয়র মিনতি অধিকারী, চেয়ারম্যান অরবিন্দ গুহ প্রমুখ।

আরও পড়ুন: উমর খালিদকে হত্যার ছক!! তদন্তে দিল্লি পুলিশের বিশেষ সেল

এবার কন্যাশ্রী দিবস পঞ্চম বর্ষে পদার্পণ করল। এদিন শরৎ সদনের মঞ্চ থেকে হাওড়া জেলার পাঁচজন কন্যাশ্রীকে সম্বর্দ্ধিত করা হল৷ যারা নানা প্রতিকূলতা সত্ত্বেও জীবনযুদ্ধে সফল হয়েছে। শিবপুর ভবানী বালিকা বিদ্যালয়ের মুক্তি, উলুবেড়িয়া বাণীবণ গার্লস স্কুলের স্বাগতা, উচ্চমাধ্যমিকে নবম বিয়াস, শিবপুর প্রসন্নকুমারী বালিকা বিদ্যালয়ের মোহান্তিকা ও প্যারা অলিম্পিকে ব্রোঞ্জ পদক জয়ী দুরারোগ্য ব্যাধিতে আক্রান্ত রূপাকে কন্যাশ্রী দিবসের মঞ্চ থেকে এদিন পুরষ্কৃত করা হয়।

জেলাশাসক চৈতালি চক্রবর্ত্তী জানান, ২০১৬-১৭ অর্থবর্ষে কে-ওয়ান প্রকল্পে হাওড়ায় উপকৃত ছাত্রীর সংখ্যা ছিল ১ লক্ষ ৪২ হাজার ১৮ জন। ২০১৭-১৮ অর্থবর্ষে তা বেড়ে হয়েছে ১ লক্ষ ৭৮ হাজার ৮৪ জন। পাশাপাশি, ২০১৬-১৭ অর্থবর্ষে কে-টু প্রকল্পে হাওড়ায় উপকৃত ছাত্রী ছিল ১৫ হাজার ২৩৭ জন। ২০১৭-১৮ অর্থবর্ষে তা বেড়ে হয়েছে ১৫ হাজার ৭১২ জন।

আরও পড়ুন: শহরে ঘুরছে বায়ুসেনার পোশাক পরা জঙ্গি! কড়া সতর্কতা

হাওড়া জেলায় কন্যাশ্রীদের জন্য বেশ কিছু পদক্ষেপ গৃহীত হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে ‘দিশারী’। জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের সমন্বয়ে কন্যাশ্রী মেয়েদের সচেতনতা শিবিরের আয়োজন করা হয়েছে। হাওড়া জেলার বিভিন্ন ব্লকে শিবিরগুলো অনুষ্ঠিত হয়েছে। কন্যাশ্রী মেয়েদের নিয়ে বিভিন্ন জায়গায় শিক্ষামূলক ভ্রমণের আয়োজন করা হয়েছে। জেলা তথ্য ও সংস্কৃতি দফতরের সঙ্গে সমন্বয় সাধন করে সৃজনশীল প্রশিক্ষণ শিবিরের আয়োজন করা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, প্রতিটি বিদ্যালয়ের নিজস্ব কন্যাশ্রী ক্লাব গড়ে তোলার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে৷ যা কন্যাশ্রীদের ব্যক্তিত্ব এবং সৃজনশীলতা বিকাশে সহায়তা হতে পেরেছে। এছাড়াও শিক্ষা দফতরের সঙ্গে সমন্বয় করে আত্মরক্ষার প্রশিক্ষণ কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন: ডেট টু ভেনু- রণ-দীপির বিয়ের হাঁড়ির খবর দিলেন বর্ষীয়ান অভিনেতা

প্রাথমিক চিকিৎসা প্রশিক্ষণ কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে। এছাড়াও তাঁদের জন্য আগামিদিনে বেশ কিছু প্রশিক্ষণ কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে উৎকর্ষ বাংলার সহযোগিতায় হাওড়া জেলার বিভিন্ন প্রান্তে ইচ্ছুক ছাত্রীদের তাদের পছন্দের ট্রেডের উপর প্রশিক্ষণ দেওয়ার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এছাড়াও এফএমসিজি ডিস্ট্রিবিউশন ও ব্যাঙ্কিং বিজনেস করেসপনডেন্স সহ বিভিন্ন প্রকল্প গৃহীত হতে চলেছে হাওড়া জেলায়।

আরও পড়ুন: পাঠচক্রকে পাঠ শিখিয়ে ‘সেকেন্ড বয়’ লাল-হলুদ