কলকাতা: ইতিমধ্যেই বুলবুল এসে পৌঁছেছে স্থলভাগে। জানা গিয়েছে রাত ১১ টার মধ্যেই সমগ্র শক্তি নিয়ে পুরোপুরি স্থলভাগের উপর আঘাত হানতে চলেছে এই ঘূর্নিঝড়। এরফলে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে সুন্দরবনে। হিঙ্গলগঞ্জ, ঝড়খালি, সন্দেশখালি এলাকায় ঝড়ের প্রভাব সবচেয়ে বেশি। আর এর মাঝেই ফের পুরনো মেজাজে দেখা গেল রায়দিঘির প্রাক্তন বামবিধায়ক কান্তিগাঙ্গুলিকে।

বরাবরই সাধারণ মানুষের পাশে থাকেন তিনি। আয়লার সময়ও নিজে ঝড়-জলের মাঝে নেমে পড়েছিলেন এলাকায়। আর এবারও তার কোনও ব্যতিক্রম হল না। বুলবুলের দাপট এড়িয়ে ৭৬-এর দোরগোড়াতেও তিনি তরুণ কমরেড।

আরও পড়ুন – স্থলভাগে বুলবুল: তিন ঘন্টা ধরে তান্ডবলীলা চলতে পারে

ইতিমধ্যে ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে একটি ভিডিও। যেখানে দেখা যাচ্ছে, সাদা ধুতি, পাঞ্জাবি পরেই তিনি নেমে পড়েছেন ঝড়-জল উপেক্ষা করে। লোডশেডিং থাকায় মাত্র অল্প কয়েকজন সঙ্গেএকে নিয়ে তিনি পৌঁছে গিয়েছেন সাধারণ মানুষের দোরগোড়ায়। প্রত্যেক বাড়ি গিয়ে গিয়ে তিনি ডেকে ডেকে সকলকে বলছেন, “বাড়িতে বুড়ো বাচ্চা আছে কেউ? এখনও এখানে কি করছিস? স্কুলে পাঠিয়ে দে।” ঘূর্ণিঝড় সম্পর্কে বারবার স্থানীয় মানুষকে সতর্ক করে দেন তিনি।

ভিডিওতে তাঁকে বলতে শোনা যায়, “আমি ভালো জায়গায় থাকব, আর তোরা মরবি এখানে বসে ? চল ওখানে গিয়ে থাকবি চল।” কান্তি গাঙ্গুলির স্ত্রীর নামে এলাকায় ‘জবাবিরাজ জ্ঞানায়ন পাঠশালা’-তে সবরকম ব‍্যবস্থা করা হয়েছে। এখনও পর্যন্ত প্রায় ২০০ জন ঠাঁই নিয়েছেন ওখানে। সেখানেই হয়েছে রাতের খাবারের ব্যবস্থা। এমার্জেন্সি পরিষেবার জন্য বিনামূল্যে মেডিকেল টিমও রেডি রাখা হয়েছে। এমনকি রাতে তিনি নিজেও দুর্গতদের সঙ্গে থাকছেন বলে জানা গিয়েছে।